রবিবার, ৭ ডিসেম্বর, ২০০৮

লেখাপড়া-- বাংলা শিক্ষার প্রাথমিক বই৤ চতুর্থ খণ্ড


লেখাপড়া‎-- বাংলা শিক্ষার প্রাথমিক বই৤ চতুর্থ খণ্ড


সবটা ঠিক ঠিক পড়তে হলে সঙ্গে দেওয়া লিংক থেকে 

ফন্ট ফ্রি ডাউনলোড ‎করে নিতে হবে৤

অবাণিজ্যিক ব্যবহারের জন্য  
বিনামূল্যে বাংলা ইউনিকোড ফন্ট সরাসরি ডাউনলোড করুন 
নিচের এই লিংকে ক্লিক করে৤


উন্নত বাংলা ফন্ট--  অহনলিপি-বাংলা১৪
https://sites.google.com/site/ahanlipi/font-download/AhanLipi-Bangla14.zip


ফন্ট প্যাকেজের মধ্যে দেওয়া ফাইল দেখে নিতে হবে৤


অহনলিপি-বাংলা১৪ ডিফল্ট টেক্সট ফন্ট সেটিং
(AhanLipi-Bangla14 Default text font setting) 

Default text font setting ডিফল্ট টেক্সট ফন্ট সেটিং

এবং


অহনলিপি-বাংলা১৪ ডিফল্ট ইন্টারনেট সেটিং
(AhanLipi-Bangla14 Default Internet setting)

(Default font setting ডিফল্ট ফন্ট সেটিং)

on internet(Mozilla Firefox)
(top left) Tools  
              Options > contents
              Fonts & Colors
              Default font:=AhanLipi-Bangla14
                        Advanced...
                                    Fonts for: =Bengali
                                    Proportional = Sans Serif,   Size=20
                                    Serif=AhanLipi-Bangla14
                                    Sans Serif=AhanLipi-Bangla14
                                    Monospace=AhanLipi-Bangla14,  Size=20
                                    -->OK
            Languages
            Choose your preferred Language for displaying pages
            Choose
            Languages in order of preference
            Bengali[bn]
            -->OK
  --> OK

          এবারে ইন্টারনেট খুললে ‘অহনলিপি-বাংলা১৪’ ফন্টে সকলকিছু দেখা যাবে৤ নেটে একই ফন্টে সব কিছু লেখাও যাবে৤


ইউনিকোড ফন্ট ডাউনলোড করার লিংক উপরে দেওয়া হল৤
লিংকে ক্লিক করুন ফন্ট ডাউনলোড হবে৤ ‎

যুক্তবর্ণ সরল গঠনের৤ ‎
বুঝতে লিখতে পড়তে সহজ৤ ‎
==========================

( অবাণিজ্যিক চার খণ্ডের এই বইটিতে কম্পিউটার ও ইন্টারনেটের সহায়তা গ্রহণ করা হয়েছে৤  

যেসকল ছবি ইন্টারনেট থেকে গ্রহণ করা হয়েছে সেগুলির কোনওটি সম্পর্কে কারও অনুমতি প্রদানে আপত্তি থাকলে সে ছবি বর্জন করা হবে৤


 লেখাপড়া-- বাংলা শিক্ষার প্রাথমিক বই৤ চতুর্থ খণ্ড





লেখাপড়া
    
(৪)

সুবর্ণলেখা
(চতুর্থ খণ্ড)

মনোজকুমার দ. গিরিশ

( কম্পিউটার ও ইন্টারনেটের সহায়তা গ্রহণ করা হয়েছে )


ভূমিকা

যে-শিশুরা লেখাপড়া আঁচড় খণ্ড(প্রথম খণ্ড), সূচনা খণ্ড(দ্বিতীয় খণ্ড), নয়ান জুলি[পথিপার্শ্বস্থ জলপ্রণালী](তৃতীয় খণ্ড) পাঠ শেষ করেছে, তাদের জন্য লেখাপড়া সুবর্ণলেখা(চতুর্থ খণ্ড) রচনা করা হল৤
আধুনিক জ্ঞান-বিজ্ঞানের শব্দাবলির সঙ্গেও তাদের একই সঙ্গে পরিচয় ঘটানোর চেষ্টা করা হয়েছে৤
এই খণ্ডে দক্ষতা অর্জন করলে বাংলা লেখাপড়ায় তারা সাবলীল হয়ে উঠতে পারবে বলে আশা করা যায়৤
শিশুদের কাছে বইখানির আদর হলে আমার প্রয়াস সার্থক হবে৤
গ্রন্থ প্রস্তুতিতে কম্পিউটার ও ইন্টারনেটের সহায়তা নেওয়া হয়েছে৤

বিনীত,
মনোজকুমার দ. গিরিশ
৯১/২, ডাঃ গিরীন্দ্রশেখর বসু রোড, মণীশ পার্ক, কোলকাতা - ৭০০-০৩৯, ভারত৤
দূরবাচী -- ৯১ (০৩৩) ২৩৪৩-৪৬৮৬, মো: ৯০৫১ ৫৩০৮ ১৬,
ইমেল : manojkumardgirish@yahoo.com
ডিসেম্বর ২০০৮




লেখাপড়া-১(এক)

লেখাপড়া

  চতুর্থ খণ্ড

  সুবর্ণলেখা

(পঞ্চম থেকে দ্বাদশ -- পাঠ)


পঞ্চম পাঠ


বর্ণ সংযোগ
ব্যঞ্জনবর্ণের সঙ্গে ব্যঞ্জনবর্ণ জুড়ে লিখলে তাকে বলা হয় -- সংযুক্ত বর্ণ বা যুক্তবর্ণ তথা
যুক্ত-ব্যঞ্জন৤

স্বর বর্ণের সঙ্গে স্বরবর্ণ যুক্ত হয় না৤

ব্যঞ্জনবর্ণের সঙ্গে স্বরবর্ণের যোগ যখন হয়, তখন স্বরবর্ণগুলিকে এক-একটি চিহ্নে পরিণত করে ব্যঞ্জনবর্ণের সঙ্গে যোগ করা হয়৤ যেমন --
স উ = স ‍ু -- সু
ক এ = ক ‍ে -- কে 
ব আ= ব া__ বা 

স্বরবর্ণের এই চিহ্নগুলি, বা দ্বিতীয় প্রকারের রূপকে বলা হয় স্বরচিহ্ন ( -কার চিহ্ন) যেমন--
আ কার = ‍া
উ কার = ‍ু
এ কার = ‍ে
ইত্যাদি৤ এসব আগেই শেখা হয়েছে৤

একটি ব্যঞ্জনবর্ণের সঙ্গে অন্য একটি, বা দুটি ব্যঞ্জনবর্ণ জুড়ে, যুক্ত-ব্যঞ্জন হয়৤
দুটি বর্ণ গায়ে গায়ে জুড়ে যুক্তবর্ণ লেখা হয়৤ যেমন --
ক ক = ক্ক -- নিক্কণ
দ দ = দ্দ -- খদ্দর
ন ন = ন্ন -- অন্ন

এছাড়াও, কখনও কখনও বর্ণ মিলিয়ে সম্পূর্ণ নতুন রূপে লেখা হয়৤ যেমন --
ক ষ = ক্ষ -- পক্ষ
জ ঞ = জ্ঞ -- বিজ্ঞান

যখন কোথাও, " ণ ন ম য র ল ব " -- এই বর্ণগুলির(৭টি) কোন একটি অন্য কোন ব্যঞ্জনবর্ণের পরে যুক্ত হয় তখন এই গুলিকে বলে ফলা৤ যেমন --

ণ ফলা = ণ্



ন ফলা = ন্




ম ফলা = ম্



য ফলা = 


(র-এর দুইটি রূপ হয়)
র ফলা=

এবং রেফ = র্‍


ল ফলা = ল্





(অন্তস্থ ৱ =) ব ফলা = ব্






লেখাপড়া-২(দুই)

র-এর দুইটি রূপ৤ র ফলা(   )  এবং রেফ (  র্‍ )

র ফলা(  ) হলে,  র-এর উচ্চারণ সাথী বর্ণের পরে হয়, এবং তা হরফের নিচে বসে৤ যেমন --
প্র = প্‌র ; অপ্রচুর = অপ্‌রচুর৤ (অপ্‍রচুর )
দ্র = দ্‌র ; ভদ্র = ভদ্‌র৤ (ভদ্‍র)


রেফ হলে(  র্‍ ),  র-এর উচ্চারণ সাথী বর্ণের আগে হয়, এবং তা হরফের (আগে তথা)উপরে বসে৤ যেমন --
র্প = র্‌প -- দর্প = দর্‌প
র্দ = র্‌দ -- ফর্দ = ফর্‌দ

লক্ষ করলে দেখা যাবে, র-ফলা() হলে আগের বর্ণের উচ্চারণ হলন্ত
তথা সংক্ষিপ্ত হয়(এখানে প্ দ্),

এবং রেফ( র্‍ )হলে 'র' বর্ণটি হয়ে যায় পূর্ব বর্ণ, এবং র-এর উচ্চারণ হলন্ত
তথা সংক্ষিপ্ত হয়(এখানে দর্‌প, ফর্‌দ)৤

যুক্ত বর্ণের উচ্চারণ স্বরান্ত তথা অ-কারান্ত হয়, 
অর্থাৎ শব্দের শেষে অ-এর মত উচ্চারণ হয়৤ 

[কিছু ব্যতিক্রমও আছে যেমন :-- বাঙ্গলা=বাঙ্গ্‌লা, বাঙ্‌লা, বাংলা; বালিগঞ্জ=বালিগঞ্জ্; টালিগঞ্জ=টালিগঞ্জ্৤]

বাংলা যুক্তবর্ণের সংখ্যা অনেক, প্রায় পাঁচ শতের উপরে(৫২৩)৤ তবে এর মধ্যে বিশুদ্ধ সংযোগ প্রায় চার শত  (৩৯৫টি)৤ দুই বর্ণের সংযোগই সবচেয়ে বেশি, প্রায় ২১১, তিন বর্ণের সংখ্যা তার চেয়ে কম প্রায় ১৬৮, চার বর্ণের সংখ্যা আরও কম মাত্র ১৬টি৤ অর্থাৎ প্রায় ৩৯৫টি৤

বাংলায় পাঁচ বর্ণের, বা তার বেশি বর্ণের সংযোগ তথা যুক্তবর্ণ হয় না৤ 


বাংলায় এ্যা উচ্চারণ বোঝানো হয় য-ফলা(  ) এবং আ-কার(া) দিয়ে --
লিখে৤

এর ফলে ‍‌বহু স্থলে, অ-সংস্কৃত শব্দ ও প্রধানত ইংরেজি শব্দের প্রভাবে প্রচলিত হওয়া
এ্যা চিহ্ন(  ),  এবং "য-ফলা আ-কার"(      )  বানান দুটির মধ্যে পার্থক্য করা সম্ভব হয় না৤

কতকগুলি ক্ষেত্রে এদের ধ্বনিও প্রায় একই রকম, এবং এর ফলে নানা প্রকার বিভ্রান্তি দেখা দেয়৤


রমনার বটমূলে অনুষ্ঠান, ঢাকা


বাংলা যুক্তবর্ণ সারণি



যুক্তবর্ণের এই রূপগুলির কিছু অনেক ক্ষেত্রে ভিন্নরূপেও লেখাও যায়৤
 
(যুক্তবর্ণ কথাটি হল আসলে, যুক্তব্যঞ্জন” 
অর্থাৎ ব্যঞ্জনবর্ণের সঙ্গে ব্যঞ্জনবর্ণের সংযোগ৤
নিচের এই ১৬টি তাই যুক্তবর্ণ নয়)

অ ‍ং = অং--অংশ, অংশু
অ ‍ঃ = অঃ -- অঃ
অ ‍ঁ = অঁ -- অঁটা
আ ‍ং = আং -- আংটি, আংশিক
আ ‍ঃ = আঃ -- আঃ
আ ‍ঁ = আঁ -- আঁচল, আঁজলা

ই ‍ং = ইং -- ইংরেজি
ই ‍ঃ = ইঃ -- ইঃ
ই ‍ঁ = ইঁ -- ইঁচড়, ইঁদুর

উ ‍ঃ = উঃ -- উঃ
উ ‍ঁ = উঁ -- উঁচু

এ ‍ঃ = এঃ -- এঃ
এ ‍ঁ = এঁ -- এঁটেল, এঁদো


ও ‍ং = ওং -- ওংকার
ও ‍ঃ = ওঃ -- ওঃ
ও ‍ঁ = ওঁ -- ওঁছা, ওঁরা


লেখাপড়া-৩(তিন)

যুক্তবর্ণ/যুক্তব্যঞ্জন

দুই বর্ণের সংযোগ

ক ক = ক্ক -- নিক্কণ, এক্কা, ধাক্কা
ক ট = ক্ট -- অক্টোপাস, অক্টোবর
ক ত = ক্ত -- অলক্তক, উক্ত
ক ন = ক্ন -- বাচক্নবী, বাচক্নু
ক ম = ক্ম -- রুক্ম
ক য = ক্য -- আধিক্য, চাকচিক্য
ক র = ক্র -- চক্র, ক্রেতা
ক ল = ক্ল -- ক্লান্ত, ক্লাস, ক্লেদ
ক ব = ক্ব -- পক্ব, ক্বচিৎ, ক্বাথ
ক ষ = ক্ষ -- পক্ষ, শিক্ষা
ক স = ক্স -- বাক্স, নক্সা
ক ‍ং = কং -- একাংশ, কিংশুক
ক ‍ঁ = কাঁ -- কাঁচা, কাঁটা



খ য = খ্য -- আলেখ্য, সখ্য, খ্যাতি
খ র = খ্র -- খ্রিস্টান, খ্রিস্টাব্দ
খ ‍ং = খং -- খাংরা
খ ‍ঁ = খঁ -- খাঁড়া, খোঁচা


গ দ = গ্দ -- বাগ্দান, বাগ্দত্ত
গ ধ = গ্ধ -- দগ্ধাবশেষ, দুগ্ধ
গ ন = গ্ন -- নিমগ্ন, ভগ্নী
গ ম = গ্ম -- অযুগ্ম, বাগ্মিতা
গ য = গ্য -- ভোগ্য, যোগ্য
গ র = গ্র -- উগ্র, ব্যগ্র, গ্রীবা
গ ল = গ্ল -- গ্লপন, গ্লাস, গ্লিসারিন
গ ব = গ্ব -- দিগ্বসন, দিগ্বিজয়

গ ‍ং = গং -- দিগংশ, গাংচিল


গ ‍ঃ = গঃ -- গীঃপতি
গ ‍ঁ = গঁ -- গাঁথা, গোঁফ












লেখাপড়া-৪(চার)

ঘ ন = ঘ্ন -- কফঘ্ন, পাপঘ্ন, বিঘ্নিত
ঘ য = ঘ্য -- শ্লাঘ্য
ঘ র = ঘ্র -- অঘ্রাত, ব্যাঘ্র
ঘ ‍ং = ঘং -- জিঘাংসা, ঘুংড়িকাশি
ঘ ‍ঁ = ঘঁ -- ঘাঁটা


ঙ ক = ঙ্ক -- কঙ্কণ, আশঙ্কা, সঙ্কোচ
ঙ খ = ঙ্খ -- পুঙ্খাণুপুঙ্খ, শঙ্খিনী
ঙ গ = ঙ্গ -- অঙ্গ, গাঙ্গেয়
ঙ ঘ = ঙ্ঘ -- সঙ্ঘ, সঙ্ঘাত
ঙ ম = ঙ্ম -- দিঙ্মণ্ডল, দিঙ্মুখ

চ চ = চ্চ -- চৌবাচ্চা, সোচ্চার
চ ছ = চ্ছ -- পুচ্ছ, ইচ্ছা
চ ঞ = চ্ঞ -- যাচ্ঞা
চ য = চ্য -- আলোচ্য, শোচ্য
চ ‍ং = চং -- চিংড়ি


চ ‍ঃ = চঃ -- অচিররোচিঃ
চ ‍ঁ = চঁ --চাঁদ, চিঁড়ে

ছ ‍ঁ = ছঁ -- ছেঁড়া, ছোঁয়া

জ জ = জ্জ -- সলজ্জ, সজ্জা
জ ঝ = জ্ঝ -- কুজ্ঝটিকা
জ ঞ = জ্ঞ -- অজ্ঞ, বিজ্ঞান
জ য = জ্য -- ভোজ্য
জ র = জ্র -- বজ্রপাত, বজ্রাগ্নি

জ ব = জ্ব -- জ্বলন্ত, জ্বাল


জ ‍ং = জং -- জবরজং, জংসন, জং
জ ‍ঃ = জঃ -- ওজঃ, তেজঃপুঞ্জ
জ ‍ঁ = জঁ -- জাঁতা, জোঁক














লেখাপড়া-৫(পাঁচ)

ঝ ‍ং = ঝং -- ঝংকার
ঝ ‍ঁ = ঝঁ -- ঝাঁটা, ঝিঁঝিপোকা


ঞ চ = ঞ্চ -- পঞ্চ, কুঞ্চিত
ঞ ছ = ঞ্ছ -- উঞ্ছ, বাঞ্ছিত
ঞ জ = ঞ্জ -- গুঞ্জন, মঞ্জুর
ঞ ঝ = ঞ্ঝ -- ঝঞ্ঝনা, ঝঞ্ঝাট


ট ট = ট্ট -- কট্টর, ঠাট্টা, লাট্টু
ট ম = ট্ম -- কুট্মল
ট য = ট্য -- অকাট্য, নাট্যোক্তি
ট র = ট্র -- পেট্রল, ট্রাম





ট ব = ট্ব -- খট্বাঙ্গ, খট্বিকা
ট ‍ং = টং -- টংকার
ট ‍ঁ = টঁ -- টুঁ শব্দ, টেঁকসই


ঠ য = ঠ্য -- পাঠ্য
ঠ ‍ং= ঠং -- ঠুংরি
ঠ ‍ঁ= ঠঁ -- ঠাঁই, ঠোঁট


ড ড = ড্ড -- বড্ড, উড্ডীন, গড্ডলিকা





 গড্ডলিকা (গড্ডালিকা নহে)


ড ম = ড্ম -- কুড্মল
ড য = ড্য -- জাড্য, জাড্যাপহ
ড র = ড্র -- ড্রয়ার, ড্রাম, ড্রিল








ড ব = ড্ব -- অনড্বান
ড ‍ ‍ং = ডং -- ডাংগুলি, হেডিং
ড ‍ঁ = ডঁ -- ডাঁটি, ডেঁয়ো









লেখাপড়া-৬(ছয়)

ঢ য = ঢ্য -- ধনাঢ্য
ঢ ‍ং= ঢং -- ঢং ঢং
ঢ ‍ঁ = ঢঁ -- ঢোঁড়া, ঢেঁকি
ঢেঁকি



(ধানের খোসা ছাড়িয়ে চাল তৈরি করতে ঢেঁকি কাজে লাগে৤
এখন আর বেশি দেখা যায় না)




ণ ট = ণ্ট -- বণ্টক, ঘুণ্টি
ণ ঠ = ণ্ঠ -- লণ্ঠন, লুণ্ঠিত
ণ ড = ণ্ড -- মণ্ডপ, গণ্ডার
ণ ঢ = ণ্ঢ -- ঢুণ্ঢন
ণ ণ = ণ্ণ -- বিষণ্ণতা, নিঘিণ্ণে
ণ ম = ণ্ম -- ষাণ্মাষিক
ণ য = ণ্য -- অগণ্য, পণ্য, অরণ্যানী
ণ ব = ণ্ব -- কণ্ব, অণ্বী(এটি অন্তস্থ ব=(ৰ) =ণ্ব)


ত ত = ত্ত -- উত্তর, সত্তর
ত থ = ত্থ -- উত্থাপিত, পুনরুত্থান
ত ন = ত্ন -- সপত্ন, পত্নী
ত ম = ত্ম -- আত্ম, মহাত্মা
ত য = ত্য -- শৈত্য, সাহিত্যিক
ত র = ত্র -- ছাত্র, চিত্রাঙ্কন
ত ব = ত্ব -- একত্ব, ত্বক
ত ‍ং = তং -- শতাংশ
ত ‍ঃ = তঃ -- চতুঃসীমা
ত ‍ঁ = তঁ -- তাঁবু, তেঁতুল, তাঁত

তাঁত বোনা
(তাঁতে শাড়ি, ধুতি ইত্যাদি বোনা হয়)


থ য = থ্য -- কথ্য, তথ্যাদি, নেপথ্যে
থ র = থ্র -- থ্রো
থ ব = থ্ব -- পৃথ্বী, পৃথ্বীধর
থ ‍ঁ = থঁ= থুঁতনি, থেঁতলানো










 লেখাপড়া-৭(সাত)

দ গ = দ্গ -- উদ্গম, উদ্গিরণ
দ ঘ = দ্ঘ -- উদ্ঘাতন

দ দ = দ্দ -- খদ্দর, উদ্দীপনা
দ ধ = দ্ধ -- বিশুদ্ধ, উদ্ধার
দ ভ = দ্ভ -- উদ্ভব, অদ্ভুত
দ ম = দ্ম -- পদ্মাসন, পদ্মিনী, পদ্ম

পদ্ম
(জলজ ফুল৤ বড় পুকুরে, এবং বিলে জন্মায়)


দ য = দ্য -- গদ্য, পদ্য, সদ্যোত্থিত
দ য = দ্‍য -- উদ্‍যাপন
দ র = দ্র -- দ্রব্য, বিদ্রোহ
দ ব = দ্ব -- দ্বিতীয়, উদ্বৃত্ত
দ ‍ং = দং -- দংশন
দ ‍ঃ = দঃ -- দুঃখ
দ ‍ঃ = দঁ -- দাঁত, দাঁতন

দাঁত৤ মুখের শোভা





ধ ন = ধ্ন -- অর্থগৃধ্নু, গৃধ্নুতা
ধ ম = ধ্ম -- সিধ্মলা
ধ য = ধ্য -- বাধ্য, অধ্যবসায়
ধ র = ধ্র -- লোধ্র, ধ্রুপদ
ধ ব = ধ্ব -- ধ্বস, ধ্বান্তারি
ধ ‍ং = ধং -- সুধাংশু
ধ ‍ঃ = ধঃ -- অধঃ
ধ ‍ঁ = ধঁ -- ধাঁধা, ধোঁয়া


ন ত = ন্ত -- অন্ত, সন্তান
ন থ = ন্থ -- পান্থ, মন্থর
ন দ = ন্দ -- সুন্দর, বন্দী
ন ধ = ন্ধ -- সুগন্ধ, সিন্ধু
ন ন = ন্ন -- বিপন্ন
ন ম = ন্ম -- তন্ময়, উন্মেষ
ন য = ন্য -- বন্যা, ন্যূন, সৈন্য

সৈন্য


ন ব = ন্ব -- অন্বয়, তন্বী
ন স = ন্স -- লেন্স, মুন্সিয়ানা

ন ‍ং = নং -- ইদানীং
ন ‍ঃ = নঃ -- পুনঃ, শনৈঃ








লেখাপড়া-৮(আট) 

প ট = প্ট -- ঝাপ্টা
প ত = প্ত -- সপ্ত, সাপ্তাহিক
প ন = প্ন -- কপ্নী
প প = প্প -- টিপ্পনি, চপ্পল 





প য = প্য -- দীপ্যমান, লিপ্যন্তর
প র = প্র -- প্রশ্ন, আপ্রাণ, প্রাথমিক
প ল = প্ল -- প্লুত, প্লেট
প স = প্স -- লিপ্সু, অপ্সরা

অপ্সরা

প ‍ং = পং -- অপাংক্তেয়, পাংশু
প ‍ঃ = পঃ -- বপুঃ
প ‍ঁ = পঁ -- পাঁক, পিঁপড়ে


ফ র = ফ্র -- আফ্রিকা,

     ফ্রক





ফ ল = ফ্ল -- ফ্লাস্ক্, ফ্লুট
ফ ‍ং = ফং -- আফিং
ফ ‍ঃ = ফঃ -- ফুঃ
ফ ‍ঁ = ফঁ -- ফাঁকা, ফাঁদ



ব জ = ব্জ -- কব্জা, সব্জি
ব দ = ব্দ -- জব্দ, শতাব্দ
ব ধ = ব্ধ -- লুব্ধক, উপলব্ধি
ব য = ব্য -- অব্যয়, ব্যাখ্যা
ব র = ব্র -- ব্রততী, জেব্রা, ব্রীহি
ব ল = ব্ল -- ব্লক, ব্লেড





ব ব = ব্ব -- মোরব্বা, চব্বিশ
ব ‍ং = বং -- এবং, বাংলা, বিংশ

ব ‍ঃ = বঃ -- বাঃ
ব ‍ঁ = বঁ -- বাঁক, বৈঁচি











লেখাপড়া-৯(নয়)


ভ য = ভ্য -- অলভ্য, অভ্যাগত
ভ র = ভ্র -- অভ্র, সৌভ্রাত্র
ভ ‍ং = ভং -- নভাংশ, ভেংচি
ভ ‍ঁ = ভঁ -- ভেঁপু, ভোঁতা



ম ন = ম্ন -- নাম্নী, নিম্নোক্ত
ম প = ম্প --আলিম্পন, সম্পন্ন, অলিম্পিক
ম ফ = ম্ফ -- লম্ফন, গুম্ফা
ম ভ = ম্ভ -- সম্ভব, সম্ভার

ম ম = ম্ম -- সম্মান(ন্মান/সনমান নহে), সম্মতি, সম্মোহন

ম য = ম্য -- কাম্য, সাম্য
ম র = ম্র -- কম্র, ম্রিয়মাণ
ম ল = ম্ল -- ম্লান, ম্লিষ্ট, অম্লোদ্গার
ম ব = ম্ব -- বিম্ব, লম্বা
ম ‍ং = মং -- মাংস, সমাংশ
ম ‍ঃ = মঃ -- তমঃ, চন্দ্রমাঃ




য য = য্য -- সাহায্য
য ‍ঁ = যঁ -- যাঁতা, যূঁই



র ঋ = নৈঋর্‍ত(এখানে ব্যঞ্জনবর্ণে স্বরবর্ণ যোগ হয়েছে,যেমন হয়--
         ক+া=কা, ক+ি=কি, ক+ু=কু, ক+ৃ=কৃ  তাই এটি যুক্তবর্ণ নয়
         এখানে বর্ণটি রেফ আকারে ঋ-এর উপরে বসেছে, সেজন্যই ভুল ধারণা হয়৤ )

র ক = র্ক -- অর্ক, কর্কট
র খ = র্খ -- গোমূর্খ, মূর্খতা
র গ = র্গ -- নির্গম, চতুর্গুণ
র ঘ = র্ঘ -- ঘর্ঘর, নির্ঘোষ
র চ = র্চ -- কুর্চ, চর্চিত
র ছ = র্ছ -- মূর্ছনা, মূর্ছাগত
র জ = র্জ -- অর্জন, দর্জি
র ঝ = র্ঝ -- নির্ঝর, নির্ঝাঞ্ঝাট












লেখাপড়া-১০(দশ)


র ট = র্ট -- কোর্ট, শার্ট
র ড = র্ড -- কার্ড, অর্ডার
র ণ = র্ণ -- চূর্ণ, নির্ণীত
র ত = র্ত -- গর্ত, বর্তমান
র থ = র্থ -- পদার্থ, আর্থিক
র দ = র্দ -- গর্দভ, ফর্দ
র ধ = র্ধ -- অর্ধ, বর্ধিত
র ন = র্ন -- দুর্নয়, দুর্নীতি
র প = র্প -- অর্পণ, দর্প
র ফ = র্ফ -- কোর্ফা, বর্ফি








র ভ = র্ভ -- নির্ভুল, বহির্ভূত
র ম = র্ম -- কর্মঠ, কর্মী
র য = র্য -- শৌর্য, নির্যাস
র ল = র্ল -- নির্লোম, বার্লি, নির্লিপ্ত
র ব = র্ব -- সর্ব, নির্বোধ(এটি অন্তস্থ ব = ৱ৤ বাংলায় আলাদা ব নেই)
র শ = র্শ -- আদর্শ, বর্শা
র ষ = র্ষ -- অভিকর্ষ, কর্ষিত, বর্ষা
র স = র্স -- উর্সনি, অর্সানো
র হ = র্হ -- দণ্ডার্হ, অন্তর্হিত



   





র ৎ = ৎর্‍ -- ভৎর্‍সনা, হাৎর্‍জ
র ‍ং = রং -- বরং, রং, রাংতা
র ‍ঃ = রঃ -- উরঃ, পুরঃসর
র ‍ঁ = রঁ -- রেঁদা, রোঁয়া


ল ক = ল্ক -- শুল্ক, কল্কা, পাল্কি
ল গ = ল্গ -- ফল্গু
ল ট = ল্ট -- পল্টন, উল্টা
ল ড = ল্ড -- রোল্ড্‌গোল্ড্, গোল্ডেন
ল প = ল্প -- জল্পনা, শিল্পী
ল ফ = ল্ফ -- গুল্ফ
ল ম = ল্ম -- শাল্মল, বল্মিক
ল য = ল্য -- শল্য, সাফল্য
ল ল = ল্ল -- মল্ল, উল্লেখ
ল ব = ল্ব -- পল্বল, অকিল্বিষ
ল ‍ং = লং -- পালং, দার্জিলিং












লেখাপড়া-১১(এগারো)


শ চ = শ্চ -- নিশ্চয়, পুনশ্চ
শ ছ = শ্ছ -- উরচ্ছদ, নিশ্ছিদ্র, দুশ্ছেদ
শ ন = শ্ন -- পৃশ্নি, প্রশ্ন
শ ম = শ্ম -- অশ্মরী, জীবাশ্ম






শ য = শ্য -- দৃশ্য, শ্যেন
শ র = শ্র -- আশ্রয়, শ্মশ্রু , শ্রেষ্ঠ
শ ল = শ্ল -- শ্লথ, শ্লেষ
শ ব = শ্ব -- বিশ্ব, বিশ্বাস
শ ‍ং = শং -- বশংবদ, দশাংশিক
শ ‍ঃ = শঃ -- ক্রমশঃ, প্রথিতযশাঃ
শ ‍ঁ = শঁ -- শাঁস, শোঁকা


ষ ক = ষ্ক -- দুষ্কর, আবিষ্কার
ষ ট = ষ্ট -- নষ্ট, বৃষ্টি




ষ ঠ = ষ্ঠ -- ষষ্ঠ, নিষ্ঠা
ষ ণ = ষ্ণ -- উষ্ণ, উষ্ণীষ
ষ প = ষ্প -- বাষ্প, নিষ্পেষণ
ষ ফ = ষ্ফ -- নিষ্ফলা, নিষ্ফেন
ষ ম = ষ্ম -- উষ্মা
ষ য = ষ্য -- ভাষ্য, মনুষ্যোচিত
ষ ব = ষ্ব -- পিতৃষ্বসা, অগ্নিষ্বাত্ত
ষ ‍ঃ = ষঃ -- ঊষাঃ   উষা (আধুনিক বানান)
ষ ‍ঁ = ষঁ -- ষাঁড়, একলষেড়ে


স ক = স্ক -- ভাস্কর, আস্কারা, স্কুল, পুরস্কার

  স্কুল



স খ = স্খ -- স্খলন্তী, স্খলন
স ট = স্ট -- পোস্ট অফিস, পোস্টার, স্টিমার

স্টিমার

লেখাপড়া-১২(বারো)


স ত = স্ত -- স্তর, সস্তা, বিস্তর
স থ = স্থ --স্থল, অবস্থা
স ন = স্ন -- স্নান, স্নেহ
স প = স্প -- অস্পষ্ট, ইস্পাত
স ফ = স্ফ -- বিস্ফারিত, স্ফূরণ
স ম = স্ম -- বিস্ময়, স্মারক
স য = স্য -- শস্য, সদস্য, সমস্যা
স র = স্র -- অজস্র, পরিস্রুত
স ল = স্ল -- স্লেজ, স্লেট


স্লেট



স ব = স্ব -- স্বর, স্বীকার, স্বপ্ন
স ‍ং = সং -- সংসার, সিংহ
স ‍ঁ = সঁ -- সাঁঝ, সিঁড়ি


হ ণ = হ্ণ -- অপরাহ্ণিক
হ ন = হ্ন -- অহ্ন, সায়াহ্ন
হ ম = হ্ম -- আহ্মা, ব্রাহ্মী
হ য = হ্য -- ঊহ্য, ঐতিহ্যানুগ
হ র = হ্র -- হ্রী, হ্রেষা
হ ল = হ্ল -- আহ্লাদী, হ্লাদিনী
হ ব = হ্ব -- গহ্বর, আহ্বায়ক
হ ‍ং = হং -- হংস, হিং




হংস



হ ‍ঃ = হঃ -- বহিঃকর্ণ
হ ‍ঁ = হঁ -- হুঁ, হোঁচট


ড় গ = ড়্গ -- খড়্গাঘাত, খড়্গী, খড়্গপুর
ড় ‍ং = ড়ং -- ভড়ং, ফড়িং





য় ‍ং = য়ং -- ভয়ংকর, স্বয়ং
য় ‍ঃ = য়ঃ -- বয়ঃক্রম, আয়ুঃ
য় ‍ঁ = য়ঁ -- ছয়ুঁই(৬ই)









লেখাপড়া-১৩(তের)




চাষি আর তাঁতির গল্প









চাষি



                              তাঁতি   



একদেশে ছিল এক চাষি,আর ছিল এক তাঁতি৤চাষি মাঠে চাষ করে ফসল ফলায়,সেই ফসল খেয়ে মানুষ বাঁচে,আর তাঁতি বাড়িতে তাঁত বুনে কাপড় বানায়৤ সেই কাপড় পরে মানুষ সমাজে বেঁচে থাকে৤
চাষি আর তাঁতিতে খুব ভাব৤মনের সুখে তারা দিন কাটায়৤কিন্তু একদিন তাদের মধ্যে ঝগড়া লেগে গেল৤মুখ দেখাদেখি বন্ধ হল৤

দিন যায়৤ মনের দুঃখে চাষি আর মাঠে যায় না৤ লাঙল তার পরে রইল ঘরে৤মাঠে আর ফসল ফলে না৤মানুষের ঘরে খাবার গেল ফুরিয়ে৤ক্ষুধায় মানুষ কাতর হল৤

তাঁতি আর তাঁত বোনে না৤তার মাকু আর সুতো পড়ে রইল ঘরে৤কাপড় আর তৈরি হয় না৤লোকের পরিচ্ছদ হল শতচ্ছিন্ন -- সমাজে আর বাস করা চলে না,এমন অবস্থা হল প্রায়৤কিন্তু নতুন কাপড় নেই কোথাও৤মানুষ পড়ল দুশ্চিন্তায়৤

চারিদিকে মানুষের তখন শুধু দুর্দশা৤

একদিন সকলে মিলে গেল চাষি আর তাঁতির কাছে৤জানাল তাদের দুঃখ আর দুর্দশার কথা৤বলল,বিবাদ মিটাও তোমরা,নইলে মানুষ যে আর বাঁচে না৤

চাষি আর তাঁতি নিজেদের ভুল বুঝতে পারল৤মানুষের দুঃখ আর দুর্দশার কথা ভেবে নিজেদের বিবাদ মিটিয়ে তারা আবার বন্ধু হল৤তারা বুঝল যে তাদের বিবাদ কেবল তাদেরই সঙ্কট তৈরি করে না, তা সবার সঙ্কট তৈরি করে৤সবাইকে ভালোভাবে বাঁচতে হলে,সবাই মিলেমিশে বাস করতে হবে,সবাইকে সবার বন্ধু হতে হবে৤

তাই চাষি গেল মাঠে ফসল ফলাতে,আর তাঁতি ঘরে বসল তাঁত নিয়ে কাপড় বুনতে৤ফসলে দেশ ভরে উঠল,কাপড়ের জমা হল পাহাড়৤

অনেকদিন পরে স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলল সবাই (যে শ্বাস ছাড়া হয় সেটা নিঃশ্বাস, আর  যে শ্বাস নেওয়া হয় তা হল প্রশ্বাস বা শ্বাস)৤









লেখাপড়া-১৪(চৌদ্দ)




বাংলা যুক্তবর্ণ সারণী


তিন বর্ণের সংযোগ

ক ট র = ক্ট্র -- ফ্যাক্ট্রি
ক ত র = ক্ত্র -- বক্ত্র, উদ্যোক্ত্রী
ক য ‍ং = ক্যং -- বাক্যাংশ
ক র ‍ং = ক্রং -- বক্রাংশ
ক ল য = ক্ল্য -- শৌক্ল্য
ক ষ ণ = ক্ষ্ণ -- তীক্ষ্ণ, তীক্ষ্ণাগ্র
ক ষ ম = ক্ষ্ম -- পক্ষ্ম, সূক্ষ্ম
ক ষ য = ক্ষ্য -- লক্ষ্য
ক ষ ব = ক্ষ্ব -- ইক্ষ্বাকু
ক ষ ‍ঃ = ক্ষং -- অক্ষাংশ
ক ষ ‍ঃ = ক্ষঃ -- চক্ষুঃশূল, কৌস্তুভবক্ষাঃ
ক ষ ‍ঁ = ক্ষঁ -- ক্ষুঁৎ


গ ধ য = গ্ধ্য -- বৈদগ্ধ্য
গ ন য = গ্ন্য -- অগ্ন্যস্ত্র, অগ্ন্যুৎপাত






গ ন ‍ং = গ্নং -- ভগ্নাংশ
গ র য = গ্র্য -- অগ্র্য


ঘ ন য = ঘ্ণ্য -- অঘ্ন্য












লেখাপড়া-১৫(পনেরো)


ঙ ক য = ঙ্ক্য -- অঙ্ক্য
ঙ ক র = ঙ্ক্র -- সঙ্ক্রমণ, সঙ্ক্রান্ত
ঙ ক ষ = ঙ্ক্ষ -- দুরাকাঙ্ক্ষ, ময়ূরপঙ্ক্ষী
ঙ খ য = ঙ্খ্য -- পরিসঙ্খ্যা
ঙ ঘ য = ঙ্ঘ্য -- অলঙ্ঘ্য
ঙ ঘ র = ঙ্ঘ্র -- অঙ্ঘ্রি
ঙ ঘ ‍ঃ = ঙ্ঘঃ -- অঙ্ঘঃ


চ চ ‍ং = চ্চং -- উচ্চিংড়ে
চ চ ‍ঃ = চ্চঃ -- উচ্চৈঃস্বরে
চ ছ র = চ্ছ্র -- উচ্ছ্রয়, কৃচ্ছ্র
চ ছ ব = চ্ছ্ব -- হৃদয়োচ্ছ্বাস


জ জ ব = জ্জ্ব -- বিদ্যুজ্জ্বালা


ণ ঠ য = ণ্ঠ্য --কণ্ঠ্য
ণ ড য = ণ্ড্য -- পাণ্ড্য
ণ ড র = ণ্ড্র -- পুণ্ড্র, পুণ্ড্রক












লেখাপড়া-১৬(ষোল)

ত ত য = ত্ত্য -- পাশ্চাত্ত্য
ত ত র = ত্ত্র -- পুত্ত্র, পৌত্ত্রিক
ত ত ব = ত্ত্ব -- ভাষাতত্ত্ব, মহত্ত্ব
ত ন য = ত্ন্য -- সাপত্ন্য
ত ম য = ত্ম্য -- ঐকাত্ম্য, দৌরাত্ম্য
ত র য = ত্র্য -- ত্র্যহ
ত র ‍ং = ত্রং -- ত্রিংশ


দ দ ব = দ্দ্ব -- তদ্দ্বারা
দ ধ য = দ্ধ্য -- আয়ুর্বৃদ্ধ্যন্ন
দ য ‍ঃ = দ্যঃ -- সদ্যঃপাতী
দ র য = দ্র্য -- দারিদ্র্য
দ র ‍ং = দ্রং -- ক্ষুদ্রাংশ
দ ব য = দ্ব্য -- সদ্ব্যয়ী, জগদ্ব্যাপী
দ ব ‍ং = দ্বং -- সদ্বংশ


ন ট র = ন্ট্র -- রেন্ট্রিগাছ, কন্ট্রোল
ন ত য = ন্ত্য -- অচিন্ত্য
ন ত র = ন্ত্র -- যন্ত্রণা, সান্ত্রী
ন ত ব = ন্ত্ব -- সান্ত্বনা
ন দ য = ন্দ্য -- অগ্নিমান্দ্য, অনিন্দ্য
ন দ র = ন্দ্র -- চন্দ্রিকা, চন্দ্রোদয়
ন দ ব = ন্দ্ব -- দন্দ্ব, প্রতিদ্বন্দ্বী
ন দ ‍ঃ = ন্দঃ -- ছন্দঃ
ন ধ য = ন্ধ্য -- সান্ধ্য, সৌগন্ধ্য, বিন্ধ্যাচল
ন ধ র = ন্ধ্র -- রন্ধ্র
ন ন য = ন্ন্য -- সন্ন্যস্ত


প ত র = প্ত্র -- নপ্ত্রী
প র ‍ং = প্রং -- শালপ্রাংশু












লেখাপড়া-১৭(সতেরো)


ব য ‍ং = ব্যং -- কাব্যাংশ


ভ য ‍ং = ভ্যং -- লভ্যাংশ
ভ র ‍ং = ভ্রং -- অভ্রংলিহ, ভ্রংশ


ম প য = ম্প্য -- অনুকম্প্য
ম প র = ম্প্র -- কম্প্রবক্ষ, সম্প্রীতি
ম ভ র = ম্ভ্র -- সম্ভ্রম


র ক ত = র্ক্ত -- অগ্রবর্ক্তী
র ক য = র্ক্য -- অতর্ক্য
র গ র = র্গ্র -- দুর্গ্রহ
র ঘ য = র্ঘ্য -- দৈর্ঘ্য
র চ ছ = র্চ্ছ -- মূর্চ্ছা, মূর্চ্ছিত
র চ য = র্চ্য -- অর্চ্য
র জ ঞ = র্জ্ঞ -- অন্তর্জ্ঞান, দুর্জ্ঞেয়
র জ য = র্জ্য -- অন্তর্জ্যোতিঃ
র ঢ য = র্ঢ্য -- দার্ঢ্য
র ণ য = র্ণ্য -- সাবর্ণ্য


র ত ম = র্ত্ম -- গিরিবর্ত্ম
র ত য = র্ত্য -- মর্ত্য
র ত র = র্ত্র -- গৃহকর্ত্রী
র থ য = র্থ্য -- সামর্থ্য
র থ ‍ং = র্থং -- চতুর্থাংশ
র দ ধ = র্দ্ধ -- অর্দ্ধ, নির্দ্ধারণ
র দ য = র্দ্য -- সৌহার্দ্য
র দ র = র্দ্র -- স্নেহার্দ্র, আর্দ্রতা
র দ ব = র্দ্ব -- অন্তর্দ্বার, অন্তর্দ্বিখণ্ডক
র ধ য = র্ধ্য -- অনবরার্ধ্য












লেখাপড়া-১৮(আঠেরো)



র ধ ব = র্ধ্ব -- মূর্ধ্বন্য, ঊর্ধ্ব
র ম য = র্ম্য -- হর্ম্য
র ব য = র্ব্য -- দুর্ব্যবহার, নির্ব্যূঢ়
র ব ‍ং = র্বং -- সর্বাংশ, চতুর্বিংশ
র শ য = র্শ্য -- অস্পর্শ্য
র শ ব = র্শ্ব -- পার্শ্ব, পারিপার্শ্বিক
র ষ ট = র্ষ্ট -- ধার্ষ্টামো
র ষ ণ = র্ষ্ণ -- বার্ষ্ণেয়
র ষ য = র্ষ্য -- হর্ষ্যক্ষ


ল ক য = ল্ক্য -- যাজ্ঞবল্ক্য


ষ ক র = ষ্ক্র -- নিষ্ক্রান্ত, নিষ্ক্রিয়
ষ ট য = ষ্ট্য -- বৈশিষ্ট্য
ষ ট র = ষ্ট্র -- উষ্ট্র, রাষ্ট্রীয়
ষ ট ‍ং = ষ্টং -- অবশিষ্টাংশ
ষ ঠ য = ষ্ঠ্য -- ওষ্ঠ্য, অনুষ্ঠ্যূত
ষ ঠ ‍ং = ষ্ঠং -- জ্যেষ্ঠাংশ
ষ ণ য = ষ্ণ্য -- ঔষ্ণ্য
ষ প র = ষ্প্র -- দুষ্প্রবেশ, দুষ্প্রাপ্য
ষ ম য = ষ্ম্য -- ঔষ্ম্য











 লেখাপড়া-১৯(উনিশ)

স ক র = স্ক্র -- তেজস্ক্রিয়, ইস্ক্রু






স ট র = স্ট্র -- স্ট্রিট, অস্ট্রেলিয়া
স ত য = স্ত্য -- অগস্ত্যোদয়
স ত র = স্ত্র -- বস্ত্র, উরস্ত্রাণ
স ত ব = স্ত্ব -- অন্তস্ত্বক
স ত ‍ঁ = স্তঁ -- গুলিস্তাঁ
স থ য = স্থ্য -- স্বাস্থ্য
স প র = স্প্র -- স্প্রে











লেখাপড়া-২০(কুড়ি)


বাংলা যুক্তবর্ণ সারণী


চার বর্ণের সংযোগ

ক ষ ম য = ক্ষ্ম্য -- সৌক্ষ্ম্য
ঙ ক ষ য = ঙ্ক্ষ্য -- সঙ্ক্ষ্যক
দ ব য ‍ং = দ্ব্যং -- দ্ব্যংশ
ন ত য ‍ং = ন্ত্যং -- ক্রান্ত্যংশ
ন ত র য = ন্ত্র্য -- স্বাতন্ত্র্য


র দ ধ ব = র্দ্ধ্ব -- ঊর্দ্ধ্বস্থ, ঊর্দ্ধ্বোত্থিত
র দ ধ ‍ং = র্দ্ধং -- অর্দ্ধাংশ
স ট র ‍ং = স্ট্রং -- স্ট্রং, স্ট্রিং
স ত র ‍ং = স্ত্রং -- চতুস্ত্রিংশ
স প র ‍ং = স্প্রং -- স্প্রিং


বর্তমানে রেফ(  র্‍ )-এর পরে ব্যঞ্জনধ্বনির দ্বিত্ব বর্জন করা হয়েছে৤ তাছাড়া, বানান সহজ করে লেখার প্রবণতা দেখা যাচ্ছে৤ যেমন --


ঊর্দ্ধ্ব -- ঊর্ধ্ব
কার্য্য -- কার্য
বর্ত্তমান -- বর্তমান
বাঙ্গালা, বাঙ্গলা, বাঙলা     বাংলা
মহত্ত্ব -- মহত্ব
সঙ্ঘ -- সংঘ
হর্ম্ম্য -- হর্ম্য











অনুশীলনী

১৤শূন্যস্থান পূর্ণ করো --
(ক)ব্যঞ্জনবর্ণের সঙ্গে ব্যঞ্জনবর্ণ জুড়ে লিখলে তাকে বলা হয়, ——বর্ণ, বা ——বর্ণ, বা ——ব্যঞ্জন৤

(খ)স্বরবর্ণের সঙ্গে ——যুক্ত হয় না৤

(গ)যুক্তবর্ণের উচ্চারণ ——তথা —— , অর্থাৎ শব্দের শেষে ——মত উচ্চারণ হয়৤

২৤এইগুলি দিয়ে শব্দ লেখো
ক্ত ঙ্খ দ্গ ঙ্ঘ ঞ্চ চ্ছ ঞ্জ জ্ঞ ট্ট ণ্ঠ ণ্ড ষ্ণ ত্ত ত্থ দ্দ ব্ধ হ্ণ র্প

ষ্ফ স্ব ম্ম এয্‍ ক্র হ্ল ক্ষ ন্স ৎর্‍ ঋর্‍ বাং দুঃ যূঁ


৩৤যুক্তবর্ণ সহযোগে শব্দ তৈর করো
        ক_ট, কা_শ, নিদ্যু_লা, প্রতিদ্ব_, পরিস_, সৌহ_, স_য়ী, 

নি_ত, স_ম, ক্ষু_শ, _ড়স, ঊ_ত্থিত, হ_ক্ষ, চতু_শ, ক্রা_শ৤







লেখাপড়া-২১(একুশ)


গল্প

চালাক খরগোশ











কোনও এক বনে এক খরগোশ ছিল৤সে মনের আনন্দে খায়দায় আর বনে বনে ঘুরে বেড়ায়৤নিশ্চিন্তে কাটে তার জীবন৤

একদিন সেই বনে এক সিংহ খাদ্য অন্বেষণে এলো৤শিকার করে সে জীবন ধারণ করে৤
খরগোশ একদিন হঠাৎ সেই সিংহের সামনে পড়ল৤ আর যায় কোথা, সিংহ গাঁক গাঁক করে লাফিয়ে এসে খরগোশকে আটকালো৤সিংহ এক থাবায় তাকে মেরেই ফেলে আর কি! খরগোশ বুঝল তার আর রেহাই নেই৤

সিংহ হুংকার দিয়ে বলল -- ওরে খরগোশ, তোকে কুড়মুড় করে চিবিয়ে খাব৤ খরগোশ বুঝল পালাবার পথ নেই, ফাঁকি দেবার উপায় নেই৤

খরগোশ বলল -- তা মরতে তো একদিন সাবইকেই হবে৤আমি না হয় ‘বনের রাজা’ সিংহের পেটেই গেলাম৤ রাজার পেটে যাওয়া তো আমার সৌভাগ্য৤ এই বলে খরগোশ সিংহের দিকে আরও এগিয়ে গেল৤

খরগোশকে খাবার জন্য সিংহের মুখে জল গড়াতে লাগল৤ জিভ দিয়ে সে ঠোঁট চাটতে শুরু করল৤
খরগোশ বলল, রাজা মশাই, আমার বাসা ওই যে দেখা যায়৤ যদি একটুখানি ছাড়েন তো সবার সাথে একবার শেষ দেখা করে আসি৤

সিংহ বল, না না সে হবে না৤ আমি তোকে ছেড়ে দিলে তুই পালিয়ে যাবি৤

খরগোশ বলল, আচ্ছা রাজামশাই আমি এখানে বসছি আপনি একটু ওদের ডেকে দিন না, দয়া করে৤ শেষ দেখাটা অন্তত একবার আমাকে করতে দিন৤

এ কথাটা সিংহের কাছে ভালই মনে হল৤ সিংহ মনে মনে ভাবল, এই সুযোগ৤ সে অন্য খরগোশগুলোকেও পাবে৤ আর তাদের খেয়ে সে পেট ভারাবে৤ সে বলল, তুই এখানে বোস্, কিন্তু খবরদার কোথাও যাবি না৤ আমি তোর ছেলেমেয়েকে ডেকে নিয়ে আসি৤ এই বলে সে খরগোশের বাসার দিকে গেল৤

যেই সিংহ চোখের আড়াল হল, অমনি খরগোশ এক ছুটে পালিয়ে গেল বনের গভীরে৤

সিংহ যখন তার বোকামি বুঝতে পারল তখন অনেক হাঁকডাক করল, কিন্তু খরগোশকে আর ধরতে পারল না৤

খরগোশ বুঝল এই বন আর নিরাপদ নয়৤ একবার সে বিপদ এড়িয়েছে, বার বার সে তা পারবে না, তাই, ‘এখানে আর থাকা উচিত নয়’, এই ভেবে সে তখুনি অন্য বনে চলে গেল৤














লেখাপড়া-২২(বাইশ)

ষষ্ঠ পাঠ

সমোচ্চারিত বর্ণ


বাংলা কিছু কিছু ক্ষেত্রে বিভিন্ন বর্ণের সমোচ্চারণ বা প্রায় সমোচ্চারণ লক্ষ করা যায়৤
যে সকল বিভিন্ন বর্ণের উচ্চারণে প্রায় কোনও ভেদ নেই তারা হল --

ই → ঈ
উ → ঊ
ঙ → ‍ং
জ → য
ণ → ন
ব → ব(অন্তস্থ ব=ৱ)
শ → ষ(অনেক সময়ে স → ষ)



এ ছাড়া আরও অনেক ক্ষেত্রে বিভিন্ন বর্ণের সমোচ্চারণ লক্ষ করা যায়৤

১৤অ,ও -- অনিল(ওনিল), ওষুধ

২৤ই=ঈ -- ইট,ঈশান(ইশান)
‍ি = ‍ী -- তিল, তরী(তরি)

৩৤উ=ঊ -- উভয়, ঊহ্য(উহ্য)
‍ু= ‍ূ -- দুল, দূর(দুর)

৪৤খ = ক্ষ -- খিদে, ক্ষুদ্র(খুদ্র) ; পাখি, পক্ষী(পখ্‌খি)

৫৤ঙ = ‍ ‍ং , ঙ্গ -- বাঙলা(বাংলা), বাংলা, বাঙ্গলা(বাংলা)
বাঙ্গালা, বাঙ্গলা, বাঙ্গ্‌লা, বাঙলা, বাঙ্‌লা, বাংলা(৬ রকম)

৬৤জ = য -- জল, যশ(জশ)

৭৤ঞ, ণ=ন -- গুঞ্জন(গুন্‌জন্), কোণ(কোন), কোন
[ জ-এর পরে ছাড়া সকল বর্ণের সঙ্গে ঞ যুক্ত হলে ‘ন’ রূপে উচ্চারিত হয়৤ ঞ + চ = ঞ্চ -- বঞ্চনা, সঞ্চার; ঞ + জ =ঞ্জ -- গুঞ্জন, রঞ্জন৤
অন্যত্র কিন্তু জ + ঞ = জ্ঞ -- বিজ্ঞান( উচ্চারণ বিগ্গাঁন)৤

৮৤র, ড় -- তৈরি, দাড়ি(কোনও কোনও অঞ্চলে উচ্চারণ হয় 'দারি')৤
অনেক সময়ে ঢ় -এর উচ্চারণ ঠিক মত না-হওয়ায় তা 'র'-এর মতোও শোনায়

৯৤ব=(অন্তস্থ ব=)ৱ -- বহু, বরুণ; বল, বায়ু

১০৤শ=ষ, স -- শোলা, ষোল(শোল=শোলো), সলা(শলা)
কিন্তু বাংলায় কিছু কিছু ক্ষেত্র দন্ত্য-স এর উচ্চারণ অক্ষুণ্ণ আছে৤ যেমন -- ব্যাস্, বাস, সাফ, সাফাই ইত্যাদি শব্দে৤
এছাড়া, যুক্তবর্ণগুলিতে প্রায় সর্বত্র স-এর উচ্চারণ ঠিক মতো হয়৤ স্তর, স্থূল৤

আবার শ-এর ক্ষেত্রে ব্যতিক্রম দেখা যায়যেমন -- শ্রী(=স্রি)৤
গৃহীত ইংরেজি শব্দে অনেক ক্ষেত্রেই স(স্)-এর উচ্চারণ ঠিক মতো হয়৤ কিছু ব্যতিক্রম অবশ্য আছে, যেমন -- গ্লাস=গেলাশ,পাস=পাশ ইত্যাদি৤
এই প্রকার সমোচ্চারণ আরও অন্য কিছু কিছু ক্ষেত্র দেখা যায়৤











লেখাপড়া-২৩(তেইশ)


একই বর্ণে বিভিন্ন উচ্চারণ --

অ = অ, ও -- অনল, অনিল(ওনিল)
এ = এ, এ্যা -- এলাম, এমন(এ্যামন)
ঞ = ঞ( ‍ঁ ), ন -- মিঞা(মিয়াঁ), অঞ্চল(অন্‌চল্)
ঙ্গ = ঙ্গ, ‍ ‍ং -- অঙ্গ(অংগ), বঙ্গ(বংগ), বাঙ্গলা(বাংলা)












লেখাপড়া-২৪(চব্বিশ)


সম-আকৃতির, 

বা

অনেকটা সম-আকৃতির বর্ণ এবং সংখ্যা --

১৤অ আ ও ভ ৩
২৤ই হ ঽ ২
৩৤উ ঊ ঙ জ ড ড় ৬
৪৤ঋ ক ঝ ধ ব র ৱ ৰ
৫৤এ ঐ ঞ
৬৤ও ঔ
৭৤খ ঘ থ ম য ষ য়
৮৤চ ছ ৮
৯৤ঢ ঢ়
১০৤ন ল শ
১১৤০ ৪ ৭ 
১২৤১ ৯











মাত্রা যুক্ত এবং মাত্রা বিযুক্ত বর্ণ 

(উপরের এবং নিচের এসব অনেক জিনিস কেবল জানার জন্য, বোঝার জন্য৤ মুখস্ত করার চেষ্টা করতে হবে না৤)

যে-রেখায় বাংলা হরফ ঝুলে থাকে তাকে বলে মাত্রা৤

বাংলা সকল হরফই মাত্রার সমরেখায় লেখা হয়৤


ইংরেজিতে হরফ সব সময়ে লাইনের উপরে লেখা হয়৤ হরফ মাত্রা থেকে নিচে প্রসারিত হয় না৤




মাত্রাযুক্ত হরফ -- অ আ ই ঈ উ ঊ
ক ঘ চ ছ জ ঝ ট ঠ ড ঢ ত দ ন ফ ব ভ ম য র ল ব ষ স হ ড় ঢ় য়

মাত্রাবিযুক্ত বর্ণ -- ঋ এ ঐ ও ঔ
খ গ ঙ ঞ ণ থ ধ প শ ৎ ‍ং ‍ঃ ‍ঁ



মনে রাখতে হবে যে, অঙ্কের সংখ্যায় কখনওই মাত্রা যোগ হয় না৤

০ ১ ২ ৩ ৪ ৫ ৬ ৭ ৮ ৯
(সংখ্যা গণনা শূন্য থেকে শুরু হয়)









লেখাপড়া-২৫(পঁচিশ)

'এ' বর্ণের "এ" উচ্চারণ
অনেক ক্ষেত্রেই 'এ' বর্ণের "এ্যা" উচ্চারণ হয়৤ যেসকল ক্ষেত্রে "এ্যা" না হয়ে 'এ' উচ্চারণ হয়, সেগুলি হল --

এই
এই-(দিয়ে শুরু সকল শব্দ)
এওত
একক/এ্যাকক(কখনও 'এ'  কখনও "এ্যা" হয়)
একচত্বারিংশ
একটি
একটু
একর
একলষেঁড়ে
একান্তে/এ্যাকান্তে
একাদিক্রমে /এ্যাকাদিক্রমে
একাবলী
এ-কার[‍ে ]
এ / কাল(এ দিয়ে শুরু অন্যান্য শব্দ যেমন -- এবার, এসময় ইত্যাদি)
একাক্ষ
একী / করণ
একুনে
একুশ
একে, এঁকে(ইহাকে)
এক্কা
এখান
এগোনো
এজমালি
এজলাস
এজাহার
এটা
এটে/এঁটে
এতৎ/কাল
এতাদৃশ
এতাবৎ
এতে
এতেক
এক্তিয়ার/এখতিয়ার
এত্তেলা
এন্তেকাল
এন্তার
এস্তাহার
এদিগে
এদের /এঁদের
এন্‌তার
এস্পার ওস্পার
এফিডেবিট/এ্যাফিডেবিট
এফোঁড়
এ‌বরো খেবরো
এবম/প্রকার
এবে[এখন]
এবং
এমনি
এর
এরণ্ড
এরা /এঁরা
এপ্রিল
এলোপাতাড়ি
এলাচ/এ্যালাচ
এলনো/এ্যালানো
এলাহি
এলেম
এলো/প্যাথি
এষা
এষণা
এক্ষণ
এসরাজ
এসে
এসো
এহেন
এয়ো
এঁচোড়
এঁটুলি
এঁটেল
এঁটে
এঁটো
এঁদো
এঁড়ে


এসকল শব্দ ছাড়া সাধারণত অন্যত্র 'এ' বর্ণের উচ্চারণ "এ্যা‍" হয়৤ যেমন --
এক=  এ্যাক
এখন = এ্যা‍খন
এত = এ্যাত
ইত্যাদি৤












লেখাপড়া-২৬(ছাব্বিশ)

শব্দের শুরুতে যেখানে ‍ে (এ-কার) আছে সেখানেও বহু বহু শব্দে "এ্যা" উচ্চারণ হয়, যেমন --
দেখা, নেওয়া, বেচা, বেলা ইত্যাদি ইত্যাদি৤

কিন্তু ‍ে (এ-কার)উচ্চরণ সাধারণভাবে "এ্যা" নয়৤ যেমন-- পেশা, রেশ, ক্রিকেট ইত্যাদি




সপ্তম পাঠ
বর্ণ বণ্টন


একই বর্ণ শব্দের শুরুতে, মধ্যে, এবং শেষে ব্যবহার করা যায়৤ 




বর্ণ
আদি
মধ্য
অন্ত




অনেক
×
×
আকাশ
×
×
ইট
আইন
লাটাই
ঈগল
?
?
...



কলম
শিকড়
পোষাক
খাতা
কখন
নখ
গরম
আগুন
যোগ
ঘাস
আঘাত
মাঘ
×
আঙিনা
সঙ
...



ঝড়
আঝোর
সাঁঝ
×
মিঞাও
মিঞা
...



×
কড়াই
বড়
×
আষাঢ়িয়া
আষাঢ়
...



ৎসরু
চিৎকার
হঠাৎ
আংটি
মীমাংসা
ভড়ং


        ইত্যাদি৤













লেখাপড়া-২৮(আটাশ)

খেয়াল করবে --
অ আ ঈ ঊ ঋ এ ঔ --- শুধু শব্দের আদি বা শুরুতে বসে, অন্যত্র বসে না,
আবার, উল্টোভাবে শব্দের শুরু বা আদিতে বসে না, এমন হরফ হল -- ঙ ঞ ড় ঢ় ইত্যাদি৤

শব্দের মধ্যস্থানে সকল ব্যঞ্জনবর্ণই বসে৤
এবং শব্দের অন্তে বা শেষেও সকল ব্যঞ্জনবর্ণই বসে৤





ব্যঞ্জনবর্ণের সঙ্গে -- স্বরবর্ণ চিহ্ন এবং ব্যঞ্জনবর্ণ যুক্ত হয়৤
স্বরবর্ণের সঙ্গে ‍ং ‍ঃ ‍ঁ  ছাড়া অন্য বর্ণ যুক্ত হয় না৤ [ ঋ -- নৈঋর্‍ত৤ এখানে ব্যঞ্জনবর্ণ
রেফ-এর সঙ্গে(আসলে 'র'-এর সঙ্গে ) স্বরবর্ণ ঋ যুক্ত হয়েছে,
যেমন হয়-- ক+ৃ =কৃ ]৤











একই বর্ণ পাশাপাশি বসিয়ে শব্দ

কাক  কাকা  কাকি  কাকু  কোঁকোঁ  খাখা  গোঁগোঁ  

ঘুঘু  ঘৌঘৌ চাচা  চাচি চাঁচা  চিঁচিঁ  চোঁচোঁ  ছিছি  

জজ  জুজু  ঝাঁঝ  ঝাঁঝাঁ  ঝিঁঝি  টোটো  টুংটাং ঠাঠা  

ঠংঠং  ড্যাংড্যাং  ঢিঢি  ঢুঢু  ঢংঢং  ঢুঁঢু  তত  তাত  

তাতা  তাঁতি  তুঁত তুঁতে  থুথু  থৈথৈ  দদ্রু  দাদ  

দাদা  দাদু  দিদি  ধুধু  ধাঁধা  ননী  নান  নানা  নানি  

নানান  পাপ  পাপী  পিপা  পিপে  পিঁপা  পেঁপে  

পোঁপোঁ  ফুফু  বাবা বিবি  বুবু  বোবা  বোঁবোঁ  ভৌভৌ  

ভোঁভোঁ  মম  মমি  মামা  মামী  রিরি রেরে  লাল  

লালা  লালু  লীলা  শশ  শশা  শিশ(মহল)  শিশি  

শিশু শোঁশোঁ  সিসা  সাঁসাঁ  সোঁসোঁ  হাহা  হিহি  

হুহু  হেহে  হৈহৈ  হোহো৤














লেখাপড়া-২৯(উনত্রিশ)


পাশাপাশি বর্ণের শব্দ

সোজা দিকে --

খগ  খাগ  চাঁছা  তথ্য  তথা  তিথি  দধি  দুধ  ধন  
ধুনা  ধুনি  ধেনু  ধোনা  নীপ  ভীম  ভূমি  ভৌম  
শিষ  শিষ্য  শেষে  সহ৤



বিপরীত দিকে --

খক্   খাক   খুকি   খুকু   খোকা   ঘোগ   চোঙ   
ছাঁচ   ঝাঁজ   থুতু   নিধি পান   পানা   পানি   পানু   
পান্না   পানীয়   ফাঁপ   ফাঁপা   ফোঁপা ফোঁপানো   ভব   
ভবি   ভাম   ভাবি   ভাবিত   যম   যাম   হস্   হস   
হাসা হাসি   হিস্যা   হিংসা   হাঁস   হুস   হুঁস৤









বর্ণের বিপরীত সংযোগ --

ইস - সই
ইহ - হই
কতক - কতক
কথক - কথক
কনক - কনক
কলকল - লকলক
কর্ষক - কর্ষক
কয়েক - কয়েক
গম - মগ
গদা - দাগ
চকচক - কচকচ
দরদ - দরদ
দাস - সদা
নগেন - নগেন
নতুন - নতুন
নামা - মানা
নালী - লীনা
মরমর - রমরম
মলম - মলম
লব - বল
শব - বশ
সমাস - সমাস
সরস - সরস
সহ - হস
সহিস - সহিস
হুবহু - হুবহু










একক ধ্বনির শব্দ --

অঃ আঃ আঁ ইঃ
উঃ উঁ এঃ ওঃ
ওং কি কু কৈ
খা গা গু গাঁ
ঘা ঘি চা ছা
ছি ছৈ ছৌ ছোঁ
জা জো জৌ জং
ঝি টং ঠং ঢং
তা থৈ দা দি
দু দে দৈ না
নে নৌ পা পো
পোঁ ফু ফুঃ ফুঁ
বা বে বৌ বাঃ
মা যা রা শো
শিং সে সং হে
হঃ হিং হাঁ













লেখাপড়া-৩০(ত্রিশ)


অষ্টম পাঠ


যতি চিহ্ন


বই পড়ার সময়ে এক নিঃশ্বাসে(যে শ্বাস ছাড়া হয় সেটা নিঃশ্বাস, আর  যে শ্বাস নেওয়া হয় তা হল প্রশ্বাস বা শ্বাস) সবটা পড়া হয় না, মাঝে মাঝে থামতে হয়৤ কোথাও বেশি কোথাও কম থামতে হয়৤ এই থামা ঠিক মতো না হলে, বাক্যের অর্থ অন্যরকম হয়েও যেতে পারে৤ থামা বা বিরতি বোঝাবার জন্য, যে-সকল চিহ্ন ব্যবহার করা হয়, তাকে বলে বিরাম চিহ্ন, বা যতি চিহ্ন৤

৤ দাঁড়ি
৥ দুই দাঁড়ি
! বিস্ময় চিহ্ন
, কমা
; সেমি কোলন
: কোলন
? প্রশ্ন চিহ্ন
- হাইফেন
_ ড্যাশ
:_ কোলন ড্যাশ
লুপ্তি কমা(যেমন, দুই টাকা=দু’টাকা)

কমা এবং লুপ্তিকমা একটি রেখার সঙ্গে 
কমা  ,___’  লুপ্তিকমা

‘  ’   উদ্ধৃতি চিহ্ন/কমা (একটি কমা দিয়ে)
“  ”  উদ্ধৃতি চিহ্ন/কমা (দুটি কমা দিয়ে)
  যথাপূর্ব, অর্থাৎ আগে যেমন লেখা আছে বোঝাতে৤












বিভিন্ন চিহ্ন --

বাংলায় একটি বিশেষ চিহ্ন ব্যবহার করা হয়, সেটি দিয়ে বর্ণের ধ্বনি-সংক্ষেপ বোঝানো হয়৤
যেমন -- ফস = ফস্ , চট = চট্৤ এই চিহ্নটিকে বলে হস/হস্/হসন্ত চিহ্ন অথবা হল/হলন্ত চিহ্ন৤ অর্থাৎ হরফের তলায় একটি  ্  হস্ / হল্ চিহ্ন বসাতে হয় ( ক ্ =ক্  ) ৤
 ‍্ --হসন্ত/হলন্ত/হস্‌ /হল্‌ চিহ্ন [  ‍্  ]




×  কাটা চিহ্ন৤ বাতিল বোঝাতে৤
 ⊨  টিক / ঠিক চিহ্ন৤ ঠিক হয়েছে বোঝাতে৤



উপরে আছে, ঊর্ধ্ব চিহ্ন (মাঝখানে কোনও শব্দ বাদ পড়ে গেলে
তা কোন্ স্থানে ঢোকাতে হবে তার স্থান নির্দেশ করতে৤


(উপরের দিকে মুখ করা তির চিহ্নের শুধু মুখটুকু))

যেমন --

---------বাড়ি
আমার যাইও ভ্রমর বসতে দেবো পিঁড়ে
জলপান কতে দেব শালিধানের চিঁড়ে


   আমার বাড়ি যাইও ভ্রমর বসতে দেবো পিঁড়ে৤ 
   জলপান কতে দেব শালিধানের চিঁড়ে




- ৺  স্বর্গীয়, ঈশ্বর ( মৃত হিন্দু ব্যক্তির নামের আগে বসে)

 * তারা চিহ্ন৤ দৃষ্টি আকর্ষণের জন্য ব্যবহার করা হয়৤

 .  বিন্দু / দশমিক চিহ্ন

 ...    বিন্দু চিহ্নিত রেখা(ডটেড লাইন)৤ কোনও অংশ বাদ দেওয়া হয়েছে বোঝাতে ব্যবহার করা হয়৤

 /    কিংবা, বা, অথবা (বাই, বার, অবলিক) চিহ্ন৤ যেখানে দুটির যে-কোনওটিই হতে পারে তা বোঝাতে ব্যবহার করা হয়৤












লেখাপড়া-৩১(এত্রিশ)


টীকা চিহ্ন




 ← →    ↓ ↑     দিক নির্দেশ চিহ্ন   →← ↓↑
__ অসি চিহ্ন
__ জোড়া অসি
_§_ সেকশন/সাপ চিহ্ন
__মুগুর/প্যারাগ্রাফ চিহ্ন




অঙ্কের চিহ্নসমূহ
যোগ
  - বিয়োগ
  × গুণ
  ÷ ভাগ
  = সমান
  . - দশমিক বিন্দু
( ) প্রথম বন্ধনী
{ } দ্বিতীয় বন্ধনী
[ ] তৃতীয় বন্ধনী













পুরানো দিনের মুদ্রা চিহ্ন

__এক আনা (টাকার ষোল ভাগের এক ভাগ)
__ দুই আনা (টাকার আট ভাগের এক ভাগ)
__ তিন আনা (এক আনার তিন গুণ)
__চার আনা (টাকার চার ভাগের এক ভাগ, সিকি)
_৷৷ _আট আনা (টাকার দুই ভাগের এক ভাগ, বা আধ টাকা, আধুলি)
__ বারো আনা (টাকার চার ভাগের তিন ভাগ)
__ ষোলো আনা বা টাকার সংকেত (পূর্ণ টাকা)[যেমন-- ১  ৲  =১৲ ]













লেখাপড়া-৩২(বত্রিশ)


শব্দ সংক্ষেপ করণ --

অনেক সময়ে বিভিন্ন প্রয়োজনে শব্দগুলিকে সংক্ষিপ্ত করে লেখা হয়৤
যেমন --

উত্তর -- উঃ
কলিকাতা/ কলকাতা -- কলিঃ/ কলঃ
কলিকাতা বিশ্ববিদ্যালয় -- কঃবিঃ
ডক্টর -- ডঃ/ড৹/ড○/ ড.
ডাক্তার -- ডাঃ/ ডা. / ডা
নিখিল ভারত বঙ্গ সাহিত্য সম্মেলন -- নিঃভাঃ বঙ্গ সাহিত্য সম্মেলন
পুনরায় -- পুনঃ/ পুঃ
বিশেষ দ্রষ্টব্য -- বিঃ দ্রঃ/ বি. দ্র.
প্রশ্ন -- প্রঃ
আশুতোষ মুখোপাধ্যায় -- আশুতোষ মুখোঃ
সম্পাদক -- সঃ 





এছাড়া অন্যভাবেও এই সংক্ষেপকরণ হয়ে থাকে, 
বা  করা যেতে পারে --

অজিত কৃষ্ণ বসু -- অ.কৃ.ব.
কলিকাতা বিশ্ববিদ্যালয় -- ক.বি.
প্রমথ নাথ বিশী -- প্র.না.বি.
মুহম্মদ আবদুল হাই -- মু. আ. হা.

ইত্যাদি


























লেখাপড়া-৩৩(তেত্রিশ)


উচ্চারণ এবং বানানে প্রভেদ --


[উচ্চারণ অনুযায়ী কিন্তু বানান লেখা চলবে না]




বানান
উচ্চারণ


ব্যঙ্গ
ব্যাঙ্গ
ব্যবধান
ব্যাবধান
ব্যস্ত
ব্যাস্ত
ব্যয়
ব্যায়
ব্যবস্থা
ব্যাবস্থা
ব্যক্তি
বেক্তি
ব্যবহার
ব্যাবহার
ব্যথা
ব্যাথা
ব্যঞ্জন
ব্যাঞ্জন
ব্যবসা
ব্যাবসা
ব্যর্থ
ব্যার্থ
ক্ষয়
খয়



এরকম আরও বহু আছে৤












শব্দ এবং সাধারণ ধারণা --



শব্দ
অর্থ
ধারণা



অপর্যাপ্ত
অপ্রচুর
প্রচুর, অপরিমেয়
গোরা/গৌর
ফর্সা
ঘোর বর্ণ
হরিৎ
সবুজ
হলুদ বর্ণ


                এরকম আরও বহু আছে৤














লেখাপড়া-৩৪(চৌত্রিশ)

বিকল্প বানান --
এ্যান্ড -- এন্ড/অ্যান্ড/য়্যান্ড
এ্যাসিড -- এসিড/অ্যাসিড/য়্যাসিড
কখনও -- কখন/কখনো
কশা -- কষা/কসা
কৃমি -- ক্রিমি 

খ্রিস্ট __ খৃষ্ট
ঠ্যাং -- ঠেঙ/ঠেঙ্গ/ঠেঙ্গ/ঠ্যাঙ
পুথি -- পুঁথি [পুথি বানানই ঠিক]
বাঙালি -- বাঙালী/বাঙ্গালী
বাংলা -- বাঙ্গালা / বাঙ্গলা / বাঙ্গ্‌লা / বাঙলা / বাঙ্‌লা
ব্যাং -- বেঙ/বেঙ্গ/ব্যাঙ
সংঘ -- সঙ্ঘ
ঢ্যাঁড়া -- ঢেরা/ঢেড়া/ঢ্যারা/ঢ্যাঁরা



                  এরকম আরও বহু আছে৤

















লেখাপড়া-৩৫(পঁয়ত্রিশ)


ভুল পড়া --

কয়েকটি শব্দ ভুল পড়ার প্রবণতা আছে --



শব্দ
পাঠ
ভুল পড়া



অনমনীয়
অ-নমনীয়
অন-মনীয়
অপ্রতিভ
অপ্রতিভ
অপ্রতিভ্‌
অভিনব
অভিনব
অভিনব্‌
অমিতাভ
অমিতাভ
অমিতাভ্‌
ক্ষুদ্রতর
ক্ষুদ্রতর
ক্ষুদ্রতর্‌
দ্রুত
দ্রুত
দ্রুৎ
পরিশ্রম
পরিশ্রম
পরিশ্রমঅ
শতরঞ্জি
শতরঞ্জি
শতরঞ্চি/সতের ইঞ্চি
সুখদা
সুখদা
সুখ্‌দা


এমনি আরও বহু আছে৤







সংখ্যা গণনার বৈচিত্র --



১.৫
১/২
১৷৷
দেড়
সাড়ে এক নহে
২.৫
১/২ 
২৷৷
আড়াই
সাড়ে দুই নহে
৩.৫
১/২ 
৩৷৷
সাড়ে তিন

৪.৫
১/২ 
৪৷৷
সাড়ে চার

 
               এর পরে সর্বত্র সাড়ে লিখে সংখ্যা লিখতে হবে, ইত্যাদি৤















লেখাপড়া-৩৬(ছত্রিশ)


নবম পাঠ


কয়েকটি ধারণার ব্যাখ্যা --

ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসগর বাংলা ভাষা তৈরি করেছেন --
ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর বাংলা ভাষার সংস্কার করে এর এত উন্নতি বিধান করেছেন যে তাঁকে বাংলাভাষার স্রষ্টা বলে অনেকে মান দেন৤ বাংলা ভাষা অনেক আগে থেকেই ছিল৤ বাংলাভাষার বয়স এক হাজার বছরের বেশি৤


দেবনাগরি লিপি হল সংস্কৃত ভাষার লিপি --
দেবনাগরি লিপি বা নাগরি লিপি হল হিন্দি ভাষা লেখার লিপি৤ এই লিপিতে বেশির ভাগ সংস্কৃত বই মুদ্রিত বলে এই রকম ধারণা প্রচলিত হয়েছে৤ সংস্কৃত ভাষার নিজস্ব কোনও লিপি নেই -- বিভিন্ন স্থানে সেইখানকার লিপিতে সংস্কৃত লেখা হত, এবং এখনও লেখা হয়৤


সংস্কৃত ভাষা দেবভাষা, এবং আদি ভাষা --
অতি প্রাচীন কালে ভারতে আর্যভাষা প্রচলিত হয়৤ বেদ ধর্মগ্রন্থগুলি এই ভাষায় লিখিত হয় -- তাই একে বেদের ভাষা বা দেবভাষা বলা হয়৤ কালক্রমে সেই ভাষায় নানা বিশৃঙ্খলা দেখা দেয়৤ তখন সেই বৈদিক ভাষাকে সংস্কার করে এক বিধিবদ্ধ রূপ দেওয়া হয়, এবং ফলে ভাষাটির নাম হয় ‘সংস্কৃত ভাষা’, অর্থাৎ সংস্কার-কৃত বা সংস্কার করা ভাষা৤


অনুশীলনী --
১৤ পড়ার সময়ে মাঝে মাঝে থামবার জন্য যেসকল চিহ্ন ব্যবহার করা হয় সেগুলিকে কি বলে?

২৤ এই চিহ্নগুলির নাম লেখ --  ?  *  /  ৤  ;   ,   :   ÷  ×  +

৩৤ এই যুক্তবণগুলির অন্য রূপগুলি লিখতে পারো কি? -- ঙ্গ ণ্ড ক্ত ত্র ভ্র হ্ম৤














লেখাপড়া-৩৭(সাঁইত্রিশ)


বাংলা বর্ণ তুলনাংক --

বাংলায় যেসকল বর্ণ এবং বর্ণচিহ্ন ইত্যাদির ব্যবহার বেশি তারা হল --

১)স্বরবর্ণ -- অ এ ই ও  ইত্যাদি পর পর৤

২)ব্যঞ্জনবর্ণ -- র ন ক ব ল স ত য় প ম ইত্যাদি পর পর৤

৩)আ-কার, ই-কার, এ-কার ইত্যাদি -- ‍া (আ-কার),  ‍ি (ই-কার), ‍ে (এ-কার)৤

৪)ফলার ব্যবহার -- র-ফলা(-   ),  য-ফলা( ),  রেফ(  র্‍ )৤


৫) স্বর এবং ব্যঞ্জন ইত্যাদি সকলগুলির মধ্যে তুলনামূলকভাবে ব্যবহার বেশি --
  ‍া   ‍ে-  র   ‍ি-   ন   ক   ব   ল   স   ত    ইত্যাদি পর পর৤

 বাংলায় সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত বর্ণ হল-- র 









বাংলা শব্দ তুলনাংক --

বাংলায় যেসকল শব্দের ব্যবহার বেশি সেগুলি হল --
না,  এই,  ও,  এবং,  শ্রী(পঃবঙ্গে),  যে,  জন্য,  হইবে,  তার,  তিনি,  আর, এক,  হয়ে,  সে,  করা,  কিন্তু,  বা,  যায়,  করে,  হইতে,  কোনও,  একটি, কি,  সেই,  টাকা৤













বাংলা ভাষার শব্দ সংখ্যা --

বাংলাভাষার শব্দ সংখ্যা মোটামুটি এক লক্ষ পঁয়ত্রিশ হাজার(১,৩৫,০০০)৤ 

বাংলা ভাষার শব্দ ক্রমে বাড়ছে, তাই সে দিক বিচার করে বাংলাভাষার 

শব্দ সংখ্যা ধরা চলে দেড় লক্ষ (১,৫০,০০০)
বা  এক লক্ষ পঞ্চাশ হাজার ৤








ধারক বাক্য৤

এক বাক্যে বাংলা সকল বর্ণ৤



বাংলায় স্বরবর্ণ এগারোটি(১১), এবং ব্যঞ্জনবর্ণ [ অন্তস্থ ব=ৱ  ধরে ] চল্লিশটি(৪০)৤ সব মিলিয়ে বাংলায় মোট বর্ণ একান্নটি(৫১)৤ এছাড়া, স্বরবর্ণ চিহ্ন আছে দশটি(১০), এবং ফলা আটটি(৮)৤ এর সবগুলি অর্থাৎ স্বরবর্ণ, ব্যঞ্জনবর্ণ, স্বরবর্ণ চিহ্ন, এবং আটটি ফলা নিয়ে বাক্যটি তৈরি হয়েছে --






বিষণ্ণ ঔদাসীন্যে ঊষাবৌদি বাংলাভাষায় প্রচলিত ঈশপের নিখুঁত গল্পটির ডালপালা অর্ধেক ছড়াতেই ঋতু ভুঁইঞা আর ঐন্দ্রিলা ধড়ফড়িয়ে দারুণ হৈ-হৈ করে উঠল-- ওঃ, ব্যাস্ এবার থামো তো, বুঝেছি বড্ডো পুরানো ঢঙের কেমন এক গল্প যার নীতিবাক্য হল,“মূঢ় আড়ম্বর ও আত্মশ্লাঘার ফল জীবনে বিঘ্ন ও বৃহৎ ক্ষতি”-- তাই না, এ্যাঁ? 
০১২৩৪৫৬৭৮৯








ভারতীয় টাকা রুপির চিহ্ন= ৉ 


৳৫৬/-   = টাকা ৫৬/-   ( ৳ =টাকার চিহ্ন )














লেখাপড়া-৩৮(আটত্রিশ)


বাংলা লিপির উদ্ভব --

প্রাচীন ভারতের ব্রাহ্মী লিপি থেকে বর্তমান বাংলা লিপির উদ্ভব হয়েছে৤ 

অশোকের শাসনকালে(খ্রিঃপূঃ ৪০০--৩০০ অব্দে) ভারতে ব্রাহ্মী লিপি প্রচলিত ছিল৤ সেই পুরানো কাল থেকে আজ অবধি নানা পরিবর্তনের মাধ্যমে ব্রাহ্মী লিপি বিবর্তিত হয়ে বর্তমানে অনেকগুলি লিপিতে পরিণত হয়েছে৤ বাংলা লিপি তাদের মধ্যে একটি৤ বাংলা লিপি তথা বাংলা বর্ণমালা বর্তমানে বাংলাদেশ, পশ্চিমবঙ্গ, ত্রিপুরা, অহম, মণিপুর, সহ সমগ্র পূর্বাঞ্চলে সাধারণভাবে ব্যবহৃত হয়৤


 ক =


প্রাচীন ব্রাহ্মীলিপি থেকে বাংলা ‘ক’-এর উদ্ভব আনুমানিক এভাবে হয়েছে৤




বাংলাভাষা --

      আজ থেকে প্রায় এক হাজার বছর আগে অর্থাৎ ৯০০ থেকে ১০০০ খ্রিস্টাব্দ নাগাদ বাংলাভাষার উদ্ভব হয়৤ 

      অতি প্রাচীনকালে ভারতে যে ভাষা প্রচলিত ছিল, তার মধ্যাঞ্চলের কথ্য ভাষার শিষ্ট রূপ হল সংস্কৃত ভাষা৤ প্রাচ্য ভাগের কথ্য-ভাষা নানা পরিবর্তনের মাধ্যমে কয়েকটি বিভিন্ন ভাষায় পরিণত হয়৤ বাংলাভাষা তাদের মধ্যে একটি৤ 

      বাংলাভাষার সাহিত্য সমৃদ্ধ৤ বিশ্ব সাহিত্যে বাংলাভাষার মর্যাদা প্রতিষ্ঠিত৤ ইউরোপের বাইরে, এবং এশিয়ার ভাষাগুলির মধ্যে প্রথম এবং ভারতীয় ভাষাগুলির মধ্যে একমাত্র বাংলাভাষায় সাহিত্যের জন্য ১৯১৩ খ্রিস্টাব্দে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর নোবেল পুরস্কার পান৤ এই পুরস্কার বিশ্বের সাহিত্যের শ্রেষ্ঠ সম্মান-পুরস্কার৤ 

        প্রায় ২৫ কোটি লোকের মাতৃভাষা বাংলা৤ এই হিসেবে বিশ্বে মাতৃভাষীর বিচারে বাংলা ভাষার স্থান অগ্রগণ্য৤ সম্ভবত চিনা, ইংরেজি এবং স্প্যানিশের পরেই বাংলাভাষার স্থান৤ 

      বাংলাভাষা ১৯৭১ থেকে বাংলাদেশের রাষ্ট্রভাষা৤ বর্তমানে ভারতের পশ্চিম বঙ্গ, ত্রিপুরা, রাজ্যেরও সরকারি কাজের ভাষা বাংলা৤ 

      বাংলা যাঁদের মাতৃভাষা তাঁদের বাঙালি বলা হয়৤ বাংলা আমাদের মাতৃভাষা তাই আমরা বাঙালি৤






অনুশীলনী --

১৤বাংলায় কোন কোন স্বরবর্ণ এবং ব্যঞ্জনবর্ণ সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত হয়?
বাংলায় কোন্ শব্দগুলি বেশি ব্যবহৃত হয়? এসব দেখে দেখে বলো৤

২৤বাংলা ধারক বাক্যটি দেখে লেখ৤

৩৤বাংলা লিপির উদ্ভব হয়েছে কোন লিপি থেকে?

৪৤বাংলা লিপি কোথায় কোথায় প্রচলিত?

৫৤ শূন্যস্থান পূর্ণ করো --
আজ থকে প্রায় __  বছর আগে অর্থাৎ ৯০০ থেকে __  খ্রিষ্টাব্দ নাগাদ বাংলাভাষার উদ্ভব হয়৤
ইউরোপের বাইরে, এবং এশিয়ার ভাষাগুলির মধ্যে __  এবং ভারতীয় ভাষাগুলির মধ্যে একমাত্র ——ভাষায় সাহিত্যের জন্য ১৯১৩ খ্রিস্টাব্দে __  নোবেল পুরস্কার পান৤ এই পুরস্কার বিশ্বের সাহিত্যের শ্রেষ্ঠ সম্মান-পুরস্কার৤ প্রায় __ কোটি লোকের মাতৃভাষা __৤ এই হিসেবে মাতৃভাষীর বিচারে বাংলা ভাষার স্থান বিশ্বে অগ্রগণ্য৤
বাংলাভাষা ১৯৭১ থেকে ——দেশের রাষ্ট্রভাষা৤ বর্তমানে ভারতের পশ্চিম বঙ্গ, ত্রিপুরা, রাজ্যেরও —— কাজের ভাষা৤
বাংলা যাঁদের ——ভাষা তাঁদের __ বলা হয়৤ বাংলা আমাদের --- তাই আমরা বাঙালি৤










লেখাপড়া-৩৯(উনচল্লিশ)

দশম পাঠ



পরিচয়


বাংলার কয়েকজন লেখক এবং নানান ভাবে খ্যাত বাঙালি --

সংক্ষেপে পরিচয়

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর৤ "গীতাঞ্জলি" কাব্যগ্রন্থের জন্য ১৯১৩ খ্রিস্টাব্দে সাহিত্যে নোবেল পুরস্কার পান৤ তাঁর রচিত ‘জনগণমন অধিনায়ক’ ভারতের জাতীয় সংগীত, এবং ‘আমার সোনার বাংলা’ গানটি বাংলাদেশের জাতীয় সংগীত৤ পৃথিবীতে তিনিই একমাত্র কবি যাঁর রচনা দুটি দেশের জাতীয় সংগীত৤ তাঁর রচিত মনোরম সংগীতগুলির নাম রবীন্দ্রসংগীত৤














ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর(বন্দ্যোপাধ্যায়)৤ অগ্রগণ্য শিক্ষাবিদ৤

বাংলার নবজাগণের প্রধান কারিগর৤ বিদ্যাসাগর তাঁর উপাধি৤ শিশুদের বর্ণ পরিচয়ের জন্য “বর্ণপরিচয়” বইটি তাঁরই লেখা৤

  








পঞ্চানন কর্মকারের হাতে খোদাই করা  ছাপার প্রথম বাংলা টাইপ৤  ১৭৭৮ খ্রিস্টাব্দে এখান থেকেই বাংলা ছাপার সূচনা৤ 


 ইংরেজদের বাংলা শেখাবার জন্য ন্যাথানিয়েল ব্র্যাসি হ্যাল্‌হেড ইংরেজিতে বাংলা ব্যাকরণ লেখেন৤ সে বইয়ে বাংলা হরফ ছাপার জন্য চার্লস উইল্‌কিনস্‌-এর নেতৃত্বে পঞ্চানন কর্মকার হরফ তৈরি করেন৤ এটাই প্রথম বাংলা ছাপার বিচল হরফ৤













হরপ্রসাদ শাস্ত্রী(মহামহোপাধ্যায়)৤ নেপালের রাজদরবার থেকে আদি বাংলা পুথি “চর্যাপদ”  নামক গ্রন্থের আবিষ্কারক৤
[খুঁজে পাওয়াকে বলে আবিষ্কার, আর নতুন জিনিস তৈরি করাকে বলে উদ্ভাবন৤]


          


শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়৤ বাংলার দরদী কথা শিল্পী৤"শ্রীকান্ত" উপন্যাসের লেখক৤



কাজী নজরুল ইসলাম৤ বাংলার বিপ্লবী কবি৤ "চল চল চল, ঊর্ধ্ব গগনে বাজে মাদল" রণসংগীতের রচয়িতা৤ তাঁর রচিত গানকে বলা হয় নজরুলগীতি বা নজরুল সংগীত৤


সুকুমার রায়৤ শিশুদের জন্য মজাদার ছড়া ও কবিতা রচনা করেন৤
শিশুদের জন্য "হ য ব র ল" নাটকের লেখক৤


 







মাইকেল মধুসূদন দত্ত৤ বাংলায় অমিত্রাক্ষর ছন্দের প্রবর্তক৤ "মেঘনাদ বধ" কাব্যের লেখক৤ প্রথমে ইংরেজিতে লিখতেন, পরে বাংলাভাষায় লিখতে শুরু করেন৤

 









জীবনানন্দ দাশ৤ 'বাংলার মুখ আমি দেখিয়াছি' আবেগময় পংক্তির স্রষ্টা৤ "রূপসী বাংলা" কবিতা পুস্তকের লেখক৤






"আমাদের দেশে হবে সেই ছেলে কবে
কথায় না ব হয়ে কাজে বড় হবে?"  

লিখেছেন --কুসুমকুমারী দাশ[জীবনানন্দের মা] 

 
     











 বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়৤ "পথের পাঁচালি" বইয়ের লেখক৤













বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়৤ "বন্দেমাতরম" গান রচনা করেন৤









অতুলপ্রসাদ সেন৤   ”মোদের গরব মোদের ভাষা, আ মরি বাংলাভাষা!“  গানের স্রষ্টা৤ 











চন্দ্রমুখী বসু৤ প্রথম বাঙালি মহিলা গ্রাজুয়েটদের দুজনের মধ্যে একজন, ব্রিটিশ সাম্রাজ্যের মধ্যেও প্রথম৤ 












কাদম্বিনী বসু(পরে গঙ্গোপাধ্যায়)৤অল্প বয়সে৤

কাদম্বিনী বসু(পরে গঙ্গোপাধ্যায়)৤ প্রথম বাঙালি মহিলা গ্রাজুয়েটদের দুজনের মধ্যে একজন, ব্রিটিশ সাম্রাজ্যের মধ্যেও প্রথম৤ তিনি হয়েছিলেন মহিলা চিকিৎসক৤























সৈয়দ মুজতবা আলি৤ খ্যাত লেখক৤















সত্যেন্দ্রনাথ দত্ত৤ খ্যাত কবি৤ ছন্দের জাদুকর৤








দ্বিজেন্দ্রলাল রায়৤ "ধনধান্য পুষ্প ভরা আমাদের এই বসুন্ধরা"(ধনধান্যে নহে)  গানের রচয়িতা৤ নাট্যকার৤












গিরীশচন্দ্র ঘোষ৤ খ্যাত নট ও নাট্যকার৤ 





   সুকান্ত ভট্টাচার্য৤ "ক্ষুধার রাজ্যে পৃথিবী গদ্যময়: পূর্ণিমা চাঁদ যেন ঝলসানো রুটি" পংক্তির স্রষ্টা৤ 'ছাড়পত্র' কবিতা গ্রন্থের লেখক৤ অল্প বয়সে মারা যান৤











কামিনী রায়৤ খ্যাত লেখিকা৤ "করিতে পারিনা কাজ সদা ভয় সদা লাজ" তাঁর রচনা৤

  










জসিম উদ্দিন৤ পল্লীকবি নামে খ্যাত৤










রজনীকান্ত সেন৤ কান্তকবি নামে খ্যাত৤









আশাপূর্ণাদেবী৤ খ্যাত লেখিকা৤









তারাশংকর বন্দ্যোপাধ্যায়৤ খ্যাত সাহিত্যিক৤








সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়৤ খ্যাত লেখক৤ 

    










প্রমথ চৌধুরী৤ লেখায় সাধু ভাষার বদলে কথার ভাষা, তথা চলিতভাষার সূচনা করেন৤

  










মুহম্মদ শহীদুল্লাহ্‌৤  খ্যাত ভাষাবেত্তা৤ 

   










সুনীতিকুমার চট্টোপাধ্যায়৤ বিশ্বখ্যাত ভাষাবিজ্ঞানী৤














সুকুমার সেন৤ খ্যাত ভাষাবিদ৤



















পবিত্র সরকার৤ খ্যাত ভাষা বিজ্ঞানী৤










কাশীরাম দাস(মূর্তি)৤ বাংলায় মহাভারত রচনাকার৤















কৃত্তিবাস ওঝা (কাল্পনিক ছবি)৤ বাংলায় রামায়ণকার৤











বীরেন্দ্রকৃষ্ণ ভদ্র৤ আকাশবাণীর প্রভাতী অনুষ্ঠান 'মহিষাসুর মর্দিনী' খ্যাত কথক৤












আশুতোষ মুখোপাধ্যায়৤ বাংলার বাঘ নামে খ্যাত৤ বিচারপতি এবং কোলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য৤ বাংলাভাষার জন্য নিবেদিত প্রাণ৤











রানি রাসমণি(দাস)৤ দক্ষিণেশ্বর মন্দিরের প্রতিষ্ঠাত্রী৤

   









রামকৃষ্ণ(গদাধর চট্টোপাধ্যায়)৤ দক্ষিণেশ্বর মন্দিরের প্রখ্যাত কালীসাধক৤ 












বিবেকানন্দ (নরেন্দ্রনাথ দত্ত )৤ রামকৃষ্ণ মিশন ও মঠের প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান প্রচারক৤ রামকৃষ্ণের শিষ্য৤

      






শ্রীঅরবিন্দ (অরবিন্দ ঘোষ)৤ খ্যাত বিপ্লবী এবং সাধক৤


   










তীতুমীর (সৈয়দ মীর নিসার আলী তিতুমীর)৤ ইংরেজদের বিরুদ্ধে নীল বিদ্রোহের নায়ক৤












বিজয় সরকার৤ খ্যাত কবিগান গায়ক, কবিয়াল৤













মুকুন্দ দাস(মূল নাম যজ্ঞেশ্বর দে)৤ খ্যাত চারণ কবি৤














বিজয় গুপ্ত৤ মনসা কাহিনি রচনাকার৤ চিত্রে মনসা মন্দির৤











রাখালদাস বন্দ্যোপাধ্যায়৤ খ্যাত ইতিহাসবিদ৤ মহেঞ্জোদারোর প্রাচীন ঐতিহাসিক স্থানের আবিষ্কর্তা৤











জগদীশচন্দ্র বসু৤ বিশ্বখ্যাত বিজ্ঞানী৤ গাছ যে বাইরের উত্তেজনায় সাড়া দেয় তা তাঁরই আবিষ্কার৤ যেটাকে সাধারণভাবে বলা হয়, গাছের যে প্রাণ আছে তিনি তা আবিষ্কার করেন৤



















সত্যেন্দ্রনাথ বসু৤ বিশ্বখ্যাত বিজ্ঞানী৤ ‘বোসন কণা’ তাঁর নামেই নামাঙ্কিত৤ 
















প্রফুল্লচন্দ্র রায়৤ খ্যাত বিজ্ঞানী৤












মেঘনাদ সাহা৤ খ্যাত বিজ্ঞানী৤












যোগীন্দ্রনাথ রায়৤ 'হাসিখুশি' শিশুপাঠ্য গ্রন্থ রচনায় খ্যাত৤

  







দ্বারকানাথ ঠাকুর৤ বিশ্বখ্যাত ব্যবসায়ী৤ প্রিন্স আখ্যা প্রাপ্ত৤ রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের পিতামহ(ঠাকুরদা)৤














আঙ্গুরবালা(প্রভাবতী দেবী )৤ খ্যাত গায়িকা ও অভিনেত্রী৤









দিলীপকুমার রায়৤ খ্যাত গায়ক৤













হেমন্ত মুখোপাধ্যায়৤ খ্যাত সংগীত শিল্পী৤












সন্ধ্যা মুখোপাধ্যায়৤ সংগীতে খ্যাত৤









মান্না দে৤ সংগীতে খ্যাত৤













দেবব্রত বিশ্বাস৤ খ্যাত রবীন্দ্রসংগীত গায়ক৤











পংকজ মল্লিক৤ খ্যাত রবীন্দ্রসংগীত গায়ক৤












কণিকা বন্দ্যোপাধ্যায়৤ রবীন্দ্রসংগীতে খ্যাত৤












সুচিত্রা মিত্র৤ রবীন্দ্রসংগীতে খ্যাত৤












শচীনদেব বর্মণ৤ খ্যাত গায়ক ও সংগীতের সুরকার৤











রুনা লায়লা৤ সংগীতে খ্যাত৤





  







কিশোরকুমার৤ সংগীত শিল্পী ও অভিনেতা৤ 













হেমাঙ্গ বিশ্বাস৤  লোকগানের  খ্যাত শিল্পী৤









উদয়শংকর৤ (উদয়শঙ্কর চৌধুরি)বিশ্বখ্যাত নৃত্যশিল্পী৤









রবিশংকর (রবীন্দ্র শঙ্কর চৌধুরি, উদয়শংকরের ছোটো ভাই)৤ বিশ্বখ্যাত সেতার বাদক৤









অমর্ত্য সেন৤ অর্থনীতিতে নোবেল পুরস্কার প্রাপক
(১৯৯৮ খ্রিঃ)৤

     








মুহাম্মদ ইউনুস৤ শান্তিতে নোবেল পুরস্কার প্রাপক
(২০০৬ খ্রিঃ)৤ 

       










অবনীন্দ্রনাথ ঠাকুর৤ খ্যাত চিত্র শিল্পী৤ ছোটোদের জন্য "শকুন্তলা" তাঁর রচনা৤ 

       








যামিনী রায়৤ খ্যাত চিত্র শিল্পী৤












নন্দলাল বসু৤ খ্যাত চিত্র শিল্পী৤












জয়নুল আবেদিন৤ খ্যাত চিত্রশিল্পী৤





সত্যজিৎ রায়৤ বিশ্বখ্যাত চলচ্চিত্র পরিচালক৤ পথের পাঁচালি, গুপি গাইন বাঘা বাইন, হীরক রাজার দেশে চলচ্চিত্রের পরিচালক৤ স্পেশাল অস্কার পুরস্কার প্রাপক৤



   










উত্তমকুমার(অরুণকুমার চট্টোপাধ্যায়) খ্যাত চলচ্চিত্র অভিনেতা৤













সুচিত্র সেন(বিবাহ পূর্ব নাম রমা দাশগুপ্ত) খ্যাত চলচ্চিত্র অভিনেত্রী৤











গোপাল ভাঁড় (কাল্পনিক চিত্র)৤ খ্যাত কৌতুকপ্রিয় ব্যক্তি৤ রাজা কৃষ্ণচন্দ্র রায়ের বয়স্য৤
















 গুরুসদয় দত্ত৤ বাংলার ব্রতচারী নৃত্যের প্রবর্তক৤


   














রাধানাথ শিকদার৤ এভারেস্ট শৃঙ্গের উচ্চতা নির্ণয় করেন৤















 বসন্ত সিংহরায়৤ এভারেস্ট শৃঙ্গ জয়ী, এবং দলনায়ক৤


   














 দেবাশিস বিশ্বাস৤ এভারেস্ট শৃঙ্গ জয়ী৤ 








ছন্দা গায়েন৤ এভারেস্ট শৃঙ্গ জয়ী৤

















দীপা কর্মকার রিও অলিম্পিকে
জটিল প্রোদুনোভা ভল্ট করে খ্যাত৤






 








গোষ্ঠ পাল৤ খ্যাত ফুটবল খেলোয়াড়৤












সৌরভ গাঙ্গুলি৤ বিশ্বখ্যাত ক্রিকেট খেলোয়াড়৤









মনোহর আইচ৤ বিশ্বশ্রী৤ পকেট হারকিউলিস নামে খ্যাত৤














পি সি সরকার৤(প্রতুল চন্দ্র সরকার) বিশ্বখ্যাত জাদুকর৤















বেগম রোকেয়া৤ নারী আন্দোলনের প্রবক্তা, সমাজসেবী৤










সুফিয়া কামাল৤ নারীজাগরণ ও সমানাধিকার প্রতিষ্ঠার সংগ্রামে উজ্জ্বল















লালন ফকির (কাল্পনিক ছবি) ৤ ঈশ্বরভক্ত৤ খ্যাত গায়ক ও গীতিকার৤



















শ্রীচৈতন্য (গৌরাঙ্গ/নিমাই মিশ্র)৤ খ্যাত বৈষ্ণব ধর্ম প্রচারক৤ 















হরিচাঁদ ঠাকুর৤ খ্যাত ভক্তিধর্ম সাধক৤  মতুয়া ধর্মের প্রবর্তক৤ 















রামমোহন রায়৤ বাংলার নব জাগরণের নায়ক৤










জ্ঞানদানন্দিনী দেবী৤ নারী জাগরণ ও সাংস্কৃতিক জগতে খ্যাত৤
রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের বৌদি৤(প্রথম ভারতীয় আইসিএস সত্যেন্দ্রনাথ ঠাকুরের স্ত্রী৤)











সত্যেন্দ্রনাথ ঠাকুর৤ প্রথম ভারতীয় আইসিএস৤
রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের দাদা৤  
জ্ঞানদানন্দিনী দেবীর স্বামী৤ 















ক্ষুদিরাম (বসু)৤ তরুণ স্বাধীনতা সংগ্রামী৤ ইংরেজ এঁকে ফাঁসি দেয়৤  এঁকে স্মরণ রেখেই রচিত হয় "একবার বিদায় দে মা ঘুরে আসি" গানটি৤
রচনা: পীতাম্বর দাস (বাঁকুড়া জেলার অধিবাসী)













বাঘা যতীন(মুখোপাধ্যায়)৤ স্বাধীনতা সংগ্রামী৤ ইংরেজদের সঙ্গে সম্মুখ সমরে নামেন৤











সূর্য সেন (মাস্টার দা)৤ ইংরেজ আমলে চট্টগ্রাম অস্ত্রাগার লুণ্ঠনের নায়ক৤











প্রীতিলতা ওয়াদ্দেদার৤ স্বাধীনতা সংগ্রামী৤

















মাতঙ্গিনী হাজরা৤ স্বাধীনতা সংগ্রামী বীরাঙ্গনা৤ 

   










চিত্তরঞ্জন দাশ৤ দেশপ্রেমিক ও রাজনীতি খ্যাত নেতা৤












সুভাষচন্দ্র বসু৤ নেতাজী৤ সর্বাধিক খ্যাত স্বাধীনতা সংগ্রামী৤




  







মুজিবুর রহমান৤ বিশ্বখ্যাত রাজনৈতিক নেতা৤ বাংলাদেশ-এর জনক৤















        ভাষা শহিদ মিনার, ঢাকা, বাংলাদেশ৤
      আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের কেন্দ্র৤


            
   
  
    
   



একাদশ পাঠ

আত্মপরিচয়



পারিবারিক পরিচয় --



১৤তোমার নাম কি?
২৤তোমার বাবার/আব্বার/ফাদারের নাম কি?
৩৤তোমার মার/আম্মার/মাদারের নাম কি?

৪৤তোমার ঠাকুরদার/দাদার/গ্রান্ড ফাদারের(বাবার-বাবা) নাম কি?
৫৤তোমার ঠাকুরমার/দাদির/বুবুর/গ্রান্ড মাদারের(বাবার-মা) নাম কি?
৬৤তোমার দাদুর/নানার(মায়ের-বাবা) নাম কি?
৭৤তোমার দিদিমার/নানির/দিদার(মায়ের-মা) নাম কি?

৮৤তোমার জ্যেঠা/বড় চাচা(বাবার-দাদা)কে?
৯৤তোমার জ্যেঠি/বড় চাচি(বাবার বৌদি)কে?
১০৤তোমার কাকা/চাচা/আন্ট(বাবার ছোট ভাই) কে?
১১৤তোমার কাকি/খুড়ি/চাচি/আন্টি/ আছে কি?

১২৤তোমার দিদি/বুবু কয়জন?
১৩৤তোমার ভগ্নীপতির/বোনাইয়ের(বোন/দিদির --স্বামী/বর) কে?
১৪৤তোমার দাদার/ব্রাদারের নাম কি?
১৫৤তোমার বৌদি/ভাবি আছে কি?
১৬৤তোমার পিসির/ফুফার/বুয়ার নাম কি?
১৭৤তোমার মাসির/খালার/খালাম্মার নাম কি?

১৮৤তোমার ক-জন পূর্বপুরুষের নাম জান, তাঁদের নাম লেখো৤

১৯৤তোমার জন্মতারিখ কি?
২০৤তোমার বয়স কত?
২১৤তোমরা কয় ভাই-বোন?


   
ঠিকানা --

তোমার ঠিকানা লেখো --

নাম —————————
বাবার নাম ————————
বাড়ির নম্বর ——
রাস্তা ——————
গ্রাম ————
ডাকঘর ——————
থানা —————
জেলা ——————
প্রদেশ —————
দেশ ——————
পিন —————
টেলিফোন —————



বিবিধ পরিচয় --

১৤তোমার মাতৃভাষা কি?
২৤তুমি কি বই পড়?
৩৤তুমি কোন্ ক্লাসে পড়?

৪৤তোমার প্রধান খাদ্য কি?
৫৤তোমার জাতীয় পোষাক কি?

৬৤তোমার বাবা কি করেন?
৭৤তোমার মা কি করেন?

৮৤তোমার কি কি ভাষা জানা আছে?







লেখাপড়া-৪০(চল্লিশ)


স্বাস্থ্যবিধি --
১৤তুমি কি সকালে কখন ঘুম থেকে ওঠো?
২৤তুমি রাতে কখন ঘুমাতে যাও?
৩৤তুমি নিয়মিত দাঁত মাজো কি?


৪৤তুমি নিয়মিত নখ কাটো কি?


৫৤তুমি পরিচ্ছন্ন থাকলে সবাই প্রশংসা করে৤ তুমি সর্বদা পরিচ্ছন্ন থাকো কি?
৬৤যেখানে-সেখানে থুতু ফেলতে নেই৤ তুমি তেমন করো কি?

৭৤টুকরো কাগজ বা অন্য কিছু যেখানে-সেখানে ফেলতে নেই৤ তুমি তা করো কি?
৮৤খাবার আগে হাত ধুতে হয়, এবং পরেও হাত এবং মুখ ধুতে হয়৤ তুমি তা করো কি?

৯৤তোমার উচ্চতা কত?
১০৤তোমার ওজন কত?
১১৤তোমার বয়স কত?



ব্যক্তিত্ব বিকাশ --

১৤তুমি গান গাইতে পারো কি?
২৤তুমি নাচতে পারো কি?
৩৤তুমি ছবি আঁকতে পারো কি?
৪৤তুমি আবৃত্তি করতে পারো কি?
৫৤তুমি কোন কোন বাজনা বাজাতে পারো?
৬৤তুমি অভিনয় করতে পার কি?
৭৤তুমি কবিতা বা গল্প লিখতে পারো কি?

৮৤তুমি কী কী খেলা জানো?
৯৤তুমি সাঁতার কাটতে জানো কি?

১০৤তোমার ক্লাবের নাম কি?

১১৤তোমার নিজের গ্রন্থাগার আছ কি?

১২৤তোমার ক-জন বন্ধু?

১৩৤শব্দ না করে নীরবে তুমি বই পড়তে পারো কি? আজকের সংবাদপত্র থেকে দশ মিনিট পাঠ করো৤

১৪৤দূরে কোথাও গেলে বাড়িতে বাবাকে কীভাবে চিঠি লিখবে, বাবাকে একখানি চিঠি লেখ৤
১৫৤তোমার হাতের লেখা কেমন? দূর থেকে তোমার বন্ধু তোমাকে চিঠি লিখেছে, দেখ তো তুমি তা পড়ে জবাব দিতে পারো কিনা?

১৬৤তোমার বিদ্যালয়ে দেওয়াল পত্রিকা আছে কি? তুমি সে পত্রিকায় তোমার লেখা দাও কি? ওই পত্রিকা পরিচালনায় তুমি আছ কি?
১৭৤মনে করো পত্রিকার পক্ষ থেকে "সেবামূলক কাজে ছাত্রদের ভূমিকা" সম্পর্কে তোমরা এক আলোচনাসভা ডেকেছ৤ ওই সভায় তোমার নিজেদের বক্তব্য বলতে পারো কি? কম পক্ষে পাঁচ মিনিট বলতে হবে৤

















লেখাপড়া-৪১(একল্লিশ)

একাদশ পাঠ

উপদেশ --

১৤বাবা মা-র কথা মেনে চলবে, তাঁরাই তোমার সবচেয়ে ভাল চান, তাঁরাই তোমায় সবচেয়ে বেশি ভালোবাসেন৤

২৤সৎ ভাবে চলবে, সত্য কথা বলবে, গুরুজনদের মানবে৤

৩৤অন্যের অসুবিধা, বিরক্তি বা কষ্টের কারণ হয়, এমন কাজ কখনও করবে না৤
৪৤কারও মনে আঘাত দেবে না, বাবা মা-র মন বুঝে কথা বলবে এবং কাজ করবে৤

৫৤শিক্ষা মানুষের প্রধান শক্তি৤ সুশিক্ষা লাভের জন্য সর্বদা চেষ্টা করবে৤
৬৤মানুষের জীবনের চরম প্রাপ্তি হল, আনন্দ -- অল্পে সুখী হলে সেই আনন্দ লাভ সহজ হয়৤

৭৤কোনও অবস্থাতেই হতাশ হবে না৤ অনেক কাজে সাফল্য আসতে দেরি হয়৤

৮৤অন্যে যে কাজ পারে তুমিও তা পারবে৤ সাধ্যমত চেষ্টা করলে সব কাজে সফল হওয়া যায়৤
৯৤কাজ করার আগে ভাল করে ভেবে নেবে, তাতে সহজে সফল হওয়া যাবে৤

১০৤পরিচ্ছন্নতা হল সংস্কৃতির প্রধান অঙ্গ, সর্বদা পরিচ্ছন্ন থাকবে৤

১১৤স্বাস্থ্যই সম্পদ -- স্বাস্থ্যই পরম সম্পদ৤ সযত্নে স্বাস্থ্যের দিকে লক্ষ রাখবে৤
১২৤আঙুল দিয়ে মাড়ি ঘসে একবেলা দাঁত মাজলে দাঁত খুব ভাল থাকে৤ নয়তো দাঁতের অসুখে অনেক কষ্ট পাবে৤

১৩৤সবুজ শাকসবজি এবং তেতো সবজি স্বাস্থ্যের পক্ষে ভাল৤
১৪৤নিয়মিত খেলাধূলা করলে শরীর ভাল থাকে৤

১৫৤খুব নরম বিছানার চেয়ে অল্প-শক্ত বিছানা ভাল৤

১৬৤পরিবেশ এবং প্রকৃতিকে রক্ষা করবে, প্রকৃতি ধ্বংস হলে মানুষও ধ্বংস হবে৤

১৭৤যার অনেক বন্ধু থাকে সে খুব সুখী হয়, সবাইকে বন্ধু করে নেবে৤
১৮৤ভাল ব্যবহারে ব্যয় নেই, কিন্তু লাভ অনেক -- সবার বন্ধুত্ব পাওয়া যায়৤

১৯৤পশুর সঙ্গে মানুষের তফাৎ -- মানুষের অনেক বুদ্ধি থাকে৤ বুদ্ধিকে সু-পথে চালিত করবে৤
২০৤‌অন্যের মন্দ করার চিন্তা না-করে, সেই মেধা নিজের মঙ্গলের জন্য ব্যয় করবে৤
২১৤বিবাদ এড়িয়ে চলবে৤
২২৤ বিপদে সাহস রাখবে৤








লেখাপড়া-৪২(বিয়াল্লিশ)

দ্বাদশ পাঠ

গ্রহ আর নক্ষত্রের কথা












রাতের আকাশে যেসকল ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র আলোকবিন্দু আমরা দেখতে পাই, চলতি কথায় সেগুলিকে বলে তারা৤ এইগুলি প্রকৃতপক্ষে অতি বিশাল আকৃতির জ্যোতিষ্ক, পৃথিবীর চেয়ে হাজার গুণ বা লক্ষ গুণ বড়৤ একথা শুনে বিশ্বাস করা কঠিন৤ এরা অতি দূর মহাকাশে অবস্থিত বলে আমরা এদের ছোট ছোট জোনাকির মতো দেখি৤
দূরে কোথাও যদি আগুন জ্বলতে দেখি তবে দূরে থেকে দেখা বলে তা ছোট দেখায়, কাছে গেলে বড় বলে বোঝা যায়৤ তারাগুলি এক-একটি বিশাল অগ্নিকুণ্ড৤ অতি দূর মহাকাশে সেগুলি দাউ দাউ করে জ্বলছে৤ পৃথিবী থেকে কোটি কোটি মাইল/কিমি দূরে এগুলির অবস্থান৤ আমরা পৃথিবীতে বসে তার লক্ষ ভাগের এক ভাগ মাত্র দেখি বলে তা সামান্য আলো বলে মনে হয়৤
সূর্যও এমনি একটি তারা৤



তবে অন্য তারাদের চেয়ে অনেক কাছে বলে, বড় দেখি এবং জোরালো আলো পাই আর তাপ পাই৤
চাঁদ কিন্তু সূর্যের চেয়ে তো বটেই, পৃথিবীর চেয়েও অনেক ছোট, কিন্তু খুব কাছে বলে সূর্যের মতো একই রকম বড় দেখায়৤ চাঁদের যে আলো আমরা পাই, তা তার নিজের নয়৤ তার মানে চাঁদে দাউ দাউ করে আগুন জ্বলে না৤ সূর্যের আলো চাঁদের উপরে পড়ে, তাই আমরা একে চকচকে আলোকময় দেখি৤ আয়নাতে যেমন সূর্যের আলো পড়লে হয় -- চাঁদের থেকে তেমনি কিছু আলো ঠিকরে এসে পড়ে পৃথিবীতে৤ এই ঠিকরে আসা আলোকেই বলি চাঁদের আলো বা জ্যোৎস্না৤
পৃথিবীকে বলা হয় গ্রহ৤ পৃথিবী সহ অনেকগুলি গ্রহ সূর্যের চারিদিকে সর্বদা ঘুরছে৤ চাঁদ কিন্তু সূর্যের চারিদিকে ঘোরে না৤ চাঁদ আমাদের এই পৃথিবীরই চারিদিকে সব সময়ে ঘুরছে৤ চাঁদকে তাই পৃথিবীর উপগ্রহ বলে৤
আমরা গাড়ি বা এরোপ্লেনে বহু দূরে যেতে পারি৤ কিন্তু এই গ্রহ নক্ষত্রগুলি এত বেশি দূরে যে সেখানে যাওয়া যায় না৤ আমরা দূরত্ব বোঝাবার জন্য একশ কিলোমিটার, হাজার কিমি, লক্ষ কিমি ইত্যাদি বলি৤ কিন্তু তারাদের দূরত্ব বোঝাতে গেলে কিলোমিটারে কুলোবে না -- এতই দূরে সেগুলি৤ সে জন্য অন্য রকমভাবে এই দূরত্ব বলা হয়৤ আলোর গতি এক সেকেন্ডে প্রায় তিন লক্ষ কিমি বা এক লক্ষ ছিয়াশি হাজার মাইল৤ এই দূরত্বকে বলে 'আলোক-সেকেন্ড'৤ এমনি আলোক-মিনিট, আলোক-ঘণ্টা, ... আলোক-বর্ষ হিসেবে তারাদের দূরত্ব মাপা হয়৤ বহু তারা আছে যারা পৃথিবীর থেকে হাজার বা লক্ষ আলোক-বর্ষ দূরে৤ ভেবে দেখ সেটা কী বিশাল দূরত্ব!
বিজ্ঞানীরা চেষ্টা করছেন যাতে গ্রহ বা নক্ষত্রে যাওয়া যায়৤ অনেক চেষ্টার পরে মানুষ চাঁদে গিয়েছে৤ নানা দেশ চাঁদে মহাকাশ যান পাঠিয়েছে৤ রকেটের সাহায্যে মহাকাশ যানে চড়ে মহাকাশে পাড়ি দেওয়া হয়েছে৤
মানুষ আরও অনেক অনেক দূরে যাবার চেষ্টা করছে, দূর মহাকাশে মনুষ্য-চালকহীন স্বয়ং-নিয়ন্ত্রিত যান পাঠাচ্ছে৤
তারাদের মাঝে ঘুরে বেড়াতে পারলে কী মজা তাই না? ভবিষ্যতে মানুষ তা পারবে কি? তারারা তো লক্ষ আলোকবর্ষ দূরে, লক্ষ বছর না-বাঁচলে মানুষ তারায় পৌঁছাবে কি করে?






লেখাপড়া-৪৩(তেতাল্লিশ)


হাঁসেদের সুখ 


















এক দেশে ছিল অনেক হাঁস৤ তারা দেশে দেশে উড়ে বেড়াত আর আপন মনে খেলে বেড়াত৤ উষাকালে সূর্য ওঠার সময়ে তারা উড়ে যেত পুবে, ফালি ফালি ভেসে থাকা মেঘের পাশ দিয়ে, পাখায় সকালের সোনা রোদ মেখে৤ চাষিরা তখন চাষ করত আর হাঁসেদের কলকাকলি শুনে চেয়ে চেয়ে দেখত কেমন করে তারা মেঘের বুকে ডানা দুলিয়ে ধীরে ধীরে দূরে চলে যায়৤ রাখালেরা মাঠে গরু চরাত৤ তারা তাদের গরুর পাল নিয়ে অনুসরণ করত হাঁসেদের৤ দূর দূর প্রান্তর গিরি কান্তার পেরিয়ে --গহন বনের উপর দিয়ে হাঁসেরা পৌঁছে যেত বিশাল কোন সরোবরে৤ তারপরে নেমে আসত ধীরে ধীরে জলাশয়ের বুকে৤ মনের আনন্দে নাইত তারা জলে ডুবে ডুবে --খেলে বেড়াত অবাধে৤ কখনও-বা খাবার খুঁজত জলের নীল তলদেশে৤ শামুক গুগলি পেলে তাই খেয়ে পেট ভরাত৤ তারপর গাছের ছায়ায় পাতার আড়ালে বিশ্রাম করত৤ ঘুমে চোখ আসত বুঁজে৤
শেষে বেলা পড়ে এলে আবার তারা পাখা মেলত আকাশে --ফিরে যেত আপন কুলায়৤ পাখা দুলিয়ে বাতাসে ভর করে মেঘের বুকে কখনও মনের আনন্দে ঘুরত চক্রাকারে৤
ছেলের দল পাঠ শেষে বাড়ি ফেরার কালে আকাশের বুকে দেখত হাঁসেদের ৤ তারা দু-হাত তুলে হাঁসেদের আহ্বান জানাত তাদের সাথে খেলা করার জন্য৤ হাঁসেরা তাদের জানাত --এখন নয় বন্ধু, অনেক খেলেছি সারাটি সকাল --সারাটি দুপুরবেলা, খেলা শেষে এবার মোদের ঘরের ফেরার পালা৤ বাতাসে পাখার ঢেউ তুলে --মেঘে মেঘে আনন্দের সাড়া জাগিয়ে হাঁসেরা উড়ে যেত সূর্য ডোবা পশ্চিম সীমান্তের দিকে --দিগন্তের কাছাকাছি তাদের ফেলে আসা ভালোবাসার নীড়ের দিকে৤


  





লুকানো শব্দ

নিচের হরফগুলি নানাভাবে সাজিয়ে তার ভিতরে লুকিয়ে থাকা শব্দ খুঁজে বার করো --
(আগে নিজে করো, পরে সমাধান দেখ)

আ লে প ভা
খা বাং ন সু
লা ন্দ ষা স
ড়া খ মৃ দ্ধি







সমাধান --
আনন্দ, বাংলাভাষা, লেখাপড়া, সুখ, সমৃদ্ধি
(নিজে বানিয়ে, বন্ধুদের সঙ্গে এ নিয়ে আরও খেলা করো)









লেখাপড়া-৪৪(চুয়াল্লিশ)

শব্দছক --
মজাদার খেলা। নির্দেশ অনুযায়ী শব্দ বসাও আর মজার শব্দের খেলায় মেতে যাও --
(প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রে বন্ধনীর মধ্যে হরফ/ঘর সংখ্যা দেওয়া হয়েছে)















(আগে নিজে করো, পরে সমাধান দেখ)

[বন্ধনীতে দেখানো হল ক’টা ঘর হতে পারে]
শব্দ লেখা -- পাশাপাশি, উপর-নিচ,
(অতিরিক্ত অর্থবোধক শব্দ খোঁজা -- দু-দিকেই শব্দ পাওয়া যাবে)৤
দু-দিক=১, ২, ৪,  ১০,   ২১, ২২,   ২৫, ২৬,  ২৮, ৩০, ৩১(এগারটি)৤

পাশাপাশি --
১।গ্রীষ্মকালীন রসালো সুস্বাদু ফল
২।মশা আটকাবার ব্যবস্থা
৪।কাগজে ছাপা হয় রোজ, টিভি রেডিয়োতে শুনি
৭।মহিলাদের পরিধেয় পোষাক
৮।রামকৃষ্ণের শিষ্য বিখ্যাত মণীষী(৫)
১০।যেখানে অনেক গাছ থাকে
১১।নৌকা বাওয়ার ব্যবস্থা
১২।নিত্য ব্যহার্য তরল
১৫।কাঁটাগাছে হয়, শীতকালীন ছোট ফল
১৬।লম্বা গলা মাছ খেকো পাখি
১৮।হাতে পায়ে থাকে, নিয়মিত কাটতে হয়
১৯।এখানে অনেক পাকা বাড়ি, গাড়ি, লোকজন থাকে
২১।এর অপর নাম জীবন(২)
২২।মাঠে চাষ করা ফসলের অবশেষ(২)
২৩।আনন্দ
২৫।এছাড়া
২৬।ঘনিষ্ঠ আত্মীয় -- মায়ের দিক থেকে
২৭।শিশুর সবচেয়ে প্রিয়জন
২৮।খাওয়ার কাজে লাগে --ধাতুর তৈরি(৩)
৩০।পরিচয়(৩)
৩১।চুরি ঠেকাবার ব্যবস্থা(২)
৩২।তীব্র
৩৩।জোরালো আলো পাবার হাতে বওয়া ব্যবস্থা









লেখাপড়া-৪৭(সাতচল্লিশ)
 

উপর-নিচ --
১।মাটির তলায় হওয়া মশলা
২।জ্বালাতনকারী ক্ষুদ্র কীট(২)
৩।সুতোয় তৈরি দীর্ঘ পোষাক(২)
৪।ব্যয়
৫।রান্না
৬।দেশ খ্যাত কবি
৯।বিপ্লবী কবি
১০।নিয়ে যাওয়া
১৩।রান্নার উপকরণ
১৪।খুশি ভাব
১৭।লেখার হাতিয়ার
২০।প্রয়োজন(৩)
২১।চেতনাহীন পদার্থ
২২।ব্যয়
২৪।পুরুষের পরিধেয়(২)
২৫।টক ফল
২৬।গলায় পরার ফুলসাজ
২৭।শীতের মাস
২৮।মৌমাছি বানায়
২৯।শব
৩০।পিতা
৩১।ফল, গানের অঙ্গ














দু-দিক=১, ২, ৪,  ১০,   ২১, ২২,   ২৫, ২৬,  ২৮, ৩০, ৩১(এগারটি)৤
    

সমাধানঃ--
পাশাপাশি :-- ১।আম, ২।মশারি, ৪।খবর, ৭।শাড়ি, ৮।বিবেকানন্দ(৫), ১০।বন, ১১।বৈঠা, ১২।জল, ১৫।কুল, ১৬।বক(২), ১৮।নখ, ১৯। নগর, ২১।জল(২), ২২।খড়(২), ২৩।মজা, ২৫।আর, ২৬।মামা, ২৭।মা, ২৮।চামচ(৩), ৩০।আলাপ(৩), ৩১।তালা(২), ৩২।কড়া, ৩৩।মশাল।


লেখাপড়া-৪৮(আটচল্লিশ)

উপর-নিচ :-- ১।আদা, ২।মশা(২), ৩।শাড়ি(২), ৪।খরচ, ৫।রন্ধন, ৬।রবিঠাকুর, ৯।নজরুলইসলাম, ১০।বহন, ১৩।লবণ, ১৪।আনন্দ, ১৭।কলম, ২০।গরজ(৩), ২১।জড়, ২২।খরচ, ২৪।জামা(২), ২৫।আমড়া(৩), ২৬।মালা, ২৭।মাঘ, ২৮।চাক, ২৯।মড়া, ৩০।আব্বা, ৩১।তাল।

নিজেরা এমনি অনেক শব্দছক বানিয়ে আরও খেলা করো।
বন্ধুদের সঙ্গেও এনিয়ে খেলা করো।












চতুর্থ খণ্ড সমাপ্ত৤

চার খণ্ড সমাপ্ত৥

 --  ০০  --



ওভারলোড হয়ে গেছে বলে, আপলোড করা কিছু ছবি মুছে দেওয়া হল,
তবে তা টেক্সটের সঙ্গে সম্পর্কিত নয়৤ 

( আরও সম্পাদনা করা হবে )


সর্বশেষ পরিমার্জন ২৬/০১/২০১৭   











কোন মন্তব্য নেই: